ট্রান্সফরমার সম্পর্কিত প্রশ্ন ও উত্তর পর্ব-২ (জবের লিখিত ও ভাইবা প্রস্তুতি)

2
2747
ট্রান্সফরমার জব

বন্ধুরা, আশা করি সবাই ভালো আছেন। আমরা গত লেখাতে দেখেছি ট্রান্সফরমার জব সম্পর্কিত কিছু প্রশ্ন এর প্রথম পর্ব। আজ আমরা তারই ধারাবাহিকতাই দ্বিতীয় লেখা দেখবো। এখানে বেশ কিছু ট্রান্সফরমার জব সম্পর্কিত গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন দেওয়া হয়েছে। তাহলে চলুন দেখি ট্রান্সফরমার জব সম্পর্কিত কি কি প্রশ্ন-উত্তর থাকবে।

আমাদের পূর্বের লেখা ট্রান্সফরমার সম্পর্কিত প্রশ্ন ও উত্তর পর্ব-১ পড়তে এখানে ক্লিক করেন

  1.  আইডিয়াল ট্রান্সফরমার কি?
  2. আইডিয়াল ট্রান্সফরমারের বৈশিষ্ট্য গুলো কি কি?
  3. অটো ট্রান্সফরমার কি অথবা কোন ধরনের ট্রান্সফরমারে শুধুমাত্র একটি কয়েল ব্যবহার করা হয়?
  4. ট্রান্সফরমার স্টেপ আপ অথবা স্টেপ ডাউন বুঝার উপায় কি?
  5. ট্রান্সফরমারের ইফিসিয়েন্সি কি?
  6. লিকেজ ফ্লাক্স কি?
  7. ট্রান্সফরমারের কোর কি দিয়ে তৈরি?
  8. ট্রান্সফরমার ব্যাংকিং কাকে বলে এবং ইহা কত প্রকার ও কি কি?
  9. ট্রান্সফরমারের সমতুল্য সার্কিট আঁক?
  10. ট্রান্সফরমারের টেস্ট কেন করা হয়?
  11. ট্রান্সফরমারের ওপেন সার্কিট এবং শর্ট সার্কিট টেস্ট কেন করা হয়?
  12. নো-লোড অবস্থায় কারেন্টের পরিমান এত কম হয় কেন?
  13. ভোল্টেজ রেগুলেশন বলতে কি বুঝায়?
  14. সার্কুলেশন কারেন্ট কি এবং এতে কি সমস্যা হয়?
  15. ট্রান্সফরমার কেন প্যারালালে সংযোগ করা হয়?

 আইডিয়াল ট্রান্সফরমার কি?

আইডিয়াল বা আদর্শ ট্রান্সফরমার বলতে এমন এক দরনের ট্রান্সফরমারকে বুঝায় যার মধ্যে কোন পাওয়ার লস নেই। অর্থাৎ ইনপুটে দেওয়া ১০০% পাওয়ার আউটপুটে পাওয়া যাবে।

কিন্ত বাস্তবে এমন কোন মেশিন বা বস্ত নেই যার পাওয়ার লস থাকবে না। সব ধরনের মেশিনে পাওয়ার লস থাকে। কিন্তু ট্রান্সফরমারের পাওয়ার লস অনেক কম হয়ে থাকে।

আইডিয়াল ট্রান্সফরমারের বৈশিষ্ট্য গুলো কি কি?

  • উয়াইন্ডিং এর রেজিস্ট্যান্স খুবই কম থাকবে।
  • এতে কোন লিকেজ ফ্লাক্স থাকবে না।
  • কোরে কোন প্রকার লস থাকবে না।
  • কোরের পারমিয়েবিলিটি বা ভেদ্যতা খুবই উচ্চ মানের।

অটো ট্রান্সফরমার কি অথবা কোন ধরনের ট্রান্সফরমারে শুধুমাত্র একটি কয়েল ব্যবহার করা হয়?

ট্রান্সফরমার জব
চিত্রঃ অটো ট্রান্সফরমার সার্কিট ডায়াগ্রাম

অটো ট্রান্সফরমার হলো এমন এক দরনের ট্রান্সফরমার যার মধ্যে কেবল মাত্র একটি কয়েল থাকে অর্থাৎ এর কিছু অংশ প্রাইমারি এবং সেকেন্ডারি উভয় কয়েলে ইলেক্ট্রিক্যালি ও ম্যাগনেটিক্যালি কমন থাকে।

ট্রান্সফরমার স্টেপ আপ অথবা স্টেপ ডাউন বুঝার উপায় কি?

ট্রান্সফরমারের প্রাইমারি সাইডের তুলনায় সেকেন্ডারি সাইডে যদি প্যাচ সংখ্যা বেশি থাকে তাহলে সেই ট্রান্সফরমার হলো স্টেপ আপ ট্রান্সফরমার।

ট্রান্সফরমারের প্রাইমারি সাইডের তুলনায় সেকেন্ডারি সাইডে যদি প্যাচ সংখ্যা কম থাকে তাহলে সেই ট্রান্সফরমার হলো স্টেপ ডাউন ট্রান্সফরমার।

ট্রান্সফরমারের ইফিসিয়েন্সি কি?

ট্রান্সফরমার কর্মদক্ষতা বলতে বুঝায়, ব্যবহৃত আউটপুট এবং ইনপুট পাওয়ার অনুপাত। পৃথিবীতে এমন কোন মেশিন আবিষ্কার হয় নি যার ইফিসিয়েন্সি ১০০ ভাগ।

কিন্তু একমাত্র ট্রান্সফরমার যার ইফিসিয়েন্সি ইনপুটের ৯০%ভাগ থেকে ৯৯% পাওয়া যায়। সুতারাং এতেই বুঝা যায় যে ট্রন্সফরমারের ইফিসিয়েন্সি খুবই ভালো এবং পাওয়ার লস খুব কম।

লিকেজ ফ্লাক্স কি?

প্রাইমারি এবং সেকেন্ডারি কয়েলে যে ফ্লাক্স উৎপন্ন হয় তাকেই লিকেজ ফ্লাক্স বলা হয়ে থাকে। প্রাইমারি ফ্লাক্সের তুলনায় সেকেন্ডারিতে যদি ফ্লাক্স বেশি  হয় সেক্ষেত্রে আউটপুটে স্বাভাবিকের চেয়ে কম ভোল্টেজ উৎপন্ন হয়।

ট্রান্সফরমারের কোর কি দিয়ে তৈরি?

ট্রান্সফরমারের কোর সাধারণত সিলিকন স্টিল নামক এক ধরনের স্টিল দিয়ে তৈরি। ট্রন্সফরমারের কোরগুলো সাধারণত নরমাল স্টিনলেস স্টিল দিয়ে হয় না।

ট্রান্সফরমার ব্যাংকিং কাকে বলে এবং ইহা কত প্রকার ও কি কি?

ট্রান্সফরমার ব্যাংকিং

কাজের ক্ষেত্রে অনেক সময় ৩ ফেজ ট্রান্সফরমার ব্যবহার না করে ৩ টি এক ফেজ ট্রান্সফরমার এর সাহায্যে ৩ ফেজ সাপ্লাই দিয়ে থাকি। এই ব্যবস্থাকে সাধারণত ট্রান্সফরমার ব্যাংকিং বলে।

কত প্রকার

ট্রান্সফরমার ব্যাংকিং সাধারণত ৬ প্রকার হয়ে থাকে

  1. স্টার-স্টার
  2. ডেল্টা-ডেল্টা
  3. স্টার-ডেল্টা
  4. ডেল্টা-স্টার
  5. ওপেন ডেল্টা অথবা (V-V)
  6. T-T কানেকশন

ট্রান্সফরমারের সমতুল্য সার্কিট আঁক?

ট্রান্সফরমার জব
ট্রান্সফরমারের সমতুল্য সার্কিট ডায়াগ্রাম

ট্রান্সফরমারের টেস্ট কেন করা হয়?

আমরা জানি ট্রান্সফরমারের পারফরম্যান্স এর হিসাব সমতুল্য সার্কিটের উপর ভিত্তি করে করা হয়। সমতুল্য সার্কিট চারটি উপাদান নিয়ে গঠিত।

সমতুল্য রেজিস্ট্যান্স R(01) বা R(02) সমতুল্য লিকেজ রিয়্যাক্ট্যান্স X(01) বা X(02) কোর লস রেজিস্ট্যান্স R(0), ম্যাগ্নেটাইজিং রিয়্যাক্ট্যান্স X(0)। এই ধ্রুবক গুলো ব্যবহার করে ট্রান্সফরমারের পারফরম্যান্স খুব সহজে বের করা যায়।

ট্রান্সফরমারের ওপেন সার্কিট এবং শর্ট সার্কিট টেস্ট কেন করা হয়?

ওপেন সার্কিট টেস্ট

এই টেস্ট করার সময় হাই সাইড ওপেন রাখতে হয় এবং লো ভোল্টেজ সাইড ইকুইপমেন্ট সংযুক্ত করা হয়। ওপেন সার্কিট টেস্ট যে কারনে করা হয়।

  • নো লোড কারেন্ট নির্ণয়
  • কোর লস নির্ণয়

এই টেস্ট করার সময় রেটেড ভোল্টেজ সাপ্লাই দেওয়া হয়।

শর্ট সার্কিট টেস্ট

এই টেস্ট করার জন্য লো ভোল্টেজ সাইডকে শর্ট করতে হয়। শর্ট সার্কিট টেস্ট যে কারনে করা হয়ঃ

  • কপার লস নির্ণয় করার জন্য
  • সমতুল্য রেজিস্ট্যান্স, রিয়াক্ট্যান্স এবং ইম্পিড্যান্স নির্ণয় করার জন্য
  • ইফিসিয়েন্সি এবং ভোল্টেজ রেগুলেশন নির্নয় করার জন্য

নো-লোড অবস্থায় কারেন্টের পরিমান এত কম হয় কেন?

নো-লোড অবস্থায় ট্রান্সফরমারের প্রাইমারীতে কারেন্টের পরিমান খুব কম হয়ে থাকে কারন ট্রান্সফরমার ডিজাইন এর সময় এর উয়াইন্ডিং এ প্রয়োজনীয় সংখ্যক টার্ন দেওয়া হয়।

এর ফলে উচ্চমানের ইন্ডাক্টিভ সার্কিটে পরিণত হয়। এমন অবস্থায় যখন ভোল্টেজ আরোপিত হয় তখন সেলফ ইন্ডাকশনের কারনে কাউন্টার ইএমএফ তৈরি হয় এবং কারেন্টকে সিমিত রাখে। এই কারনে নো-লোড অবস্থায় কারেন্টের পরিমান এত কম হয়।

ভোল্টেজ রেগুলেশন বলতে কি বুঝায়?

ট্রান্সফরমারের ভোল্টেজ বৃদ্ধি পেলে সেকেন্ডারিতে ভোল্টেজ কমে যায়। তাই নো লোড ভোল্টেজ হতে ফুল লোড ভোল্টেজ পর্যন্ত মোট ভোল্টেজ ড্রপকে ফুল লোড ভোল্টেজ দ্বারা ভাগ করলে ভোল্টেজ রেগুলেশন পাওয়া যায়। একে শতকরা হিসেবে প্রকাশ করা হয়।

সার্কুলেশন কারেন্ট কি এবং এতে কি সমস্যা হয়?

সার্কুলেশন কারেন্ট

প্যারালাল অপারেশনের সময় যদি উভয় ট্রান্সফরমারে ট্রান্সফরমেশন রেশিও এক না হয় তাহলে আমরা জানি ট্রন্সফরমারের ইন্ডিউসড সেকেন্ডারি ইএমএফ এর কম-বেশি বা অসমতা বিরাজ করে।

এবং সঠিকভাবে ফেজ বিপরীত বা অপজিশন হয় না যার ফলে লোড অবস্থায় এমনকি  নো-লোড অবস্থায় ট্রান্সফরমারের উভয় উয়াইন্ডিং এর কিছু কারেন্ট আবর্তাকারে বা ঘূর্ণন কারে প্রবাহিত হয়, ইহাই সার্কুলেশন কারেন্ট।

সমস্যা
  • অসম লোড বহনের প্রবনতা সৃষ্টি হয়।
  • এর ফলে পূর্ণভাবে KVA আউটপুট পাওয়া যায় না।
  • ট্রান্সফরমার অতিরিক্ত গরম হয়ে যায়

ট্রান্সফরমার কেন প্যারালালে সংযোগ করা হয়?

অনেক সময় ট্রান্সফরমারকে অতিরিক্ত লোড বহন করার জন্য প্রয়োজন হতে পারে। এই অবস্থায় দুই বা ততদিক ট্রান্সফরমারকে প্যারালালে সংযোগ করতে হয়।

প্যারালাল সার্কিটে সংযুক্ত করতে হলে নিচের শর্তগুলো পুরন করতে হয়।

  • সবগুলো ট্রান্সফরমার এর হাই এবং লো সাইডের ভোল্টেজ রেটিং একই হতে হবে অর্থাৎ ট্রান্সফরামার রেশিও একই হতে হবে।
  • ট্রান্সফরমার সমূহকে সঠিক পোলারিটি অনুযায়ী সংযোগ দিতে হবে।
  • প্রতিটি ট্রান্সফরমারের সমতুল্য ইম্পিডেন্স অবশ্যই KVA রেটিং এর উল্টানুপাতিক হতে হবে।
  • প্রতিটি ট্রান্সফরমারের নিজস্ব সমতুল্য রেজিস্ট্যান্স এবং রিয়্যাক্ট্যান্স এর অনুপাত একই হতে হবে।
  • ফেজ সিকুয়েন্স অবশ্যই একই হতে হবে

ট্রান্সফরমার সম্পর্কিত প্রশ্ন ও উত্তর পর্ব-১  (জবের লিখিত ও ভাইবা প্রস্তুতি) পড়ুন

ট্রান্সফরমার পর্ব-১ (ট্রান্সফরমার কি, কিভাবে কাজ করে, বিভিন্ন অংশ) পড়ুন

ট্রান্সফরমার পর্ব-২ (প্রকারভেদ, লস-সমূহ, কর্মদক্ষতা) পড়ুন 

আজকের মত বিদায় বন্ধু। আপনাদের কোন ট্রান্সফরমার জব সম্পর্কিত প্রশ্ন থাকলে আমাদের কে অবশ্যই জানাবেন। এছাড়া আপনার কাছে যদি মনে হয় ট্রান্সফরমার জব সম্পর্কিত আরো কিছু প্রশ্ন থাকলে ভালো হত তাহলেও জানাবেন। আর বন্ধুরা, বেশি বেশি লাইক, কমেন্ট এবং শেয়ার করুন। ধন্যবাদ।

2 COMMENTS

  1. transformer এর কোর থেকে সেকেন্ডারি র্টান কিভাবে বের করবো

LEAVE A REPLY