রেজিস্টর কি এবং বিস্তারিত আলোচনা | Resistor Bangla

19
রেজিস্টর

ইলেক্ট্রনিক্স নিয়ে ঘাটাঘাটি বা কাজ করতে গেলে প্রথমে যে নামটি আসে তা হলো Resistor। এটি ইলেক্ট্রনিক্সের একটি সাধারন কম্পোনেন্ট। প্রতিটি ইলেক্ট্রনিক্স সার্কিটে এই কম্পোনেন্ট ব্যবহার করা হয়ে থাকে। যারা ইলেক্ট্রনিক্স নিয়ে কাজ করেন তাদের কাছে রেজিস্টর খুবই পরিচিত একটি কম্পোনেন্ট। এর বিশেষ একটি কাজ আছে।

এই লিখাটি কেন পড়বেন??

এই লেখাতে রেজিস্টর সম্বন্ধে বিস্তারিত আলোচনা করা হবে যার মাধ্যমে আপানারা রেজিস্টরের সম্বন্ধে পরিস্কার ধারনা পাবেন। যে কারনে ব্যবহার করা হয়, একটি সার্কিটে রেজিস্টরের কি ভূমিকা। সার্কিটে Resistor সংযোগ পদ্ধতি।

রেজিস্টরের মান নির্ণয় পদ্ধতি লেখাটি পড়তে এখানে ক্লিক করুন।

  1. রেজিস্টর-কাকে বলে?
  2. রেজিস্ট্যান্স কি?
  3. রেজিস্টরের প্রতীক, একক।
  4. প্রকারভেদ
  5. প্রধান কাজ
  6. রেজিস্টর সার্কিটে সংযোগ পদ্ধতি

Resistor:

Resistor একটি ইংরেজি শব্দ যার বাংলা অর্থ হচ্ছে রোধক। ইহা দুই প্রান্ত বিশিষ্ট একটি প্যাসিভ ইলেকট্রিক্যাল ডিভাইস। রোধ নাম শুনেই বুঝতে পারছেন যে এটা বাধা প্রধানকারি একটা ডিভাইস। পরিবাহির মধ্যদিয়ে তড়িৎ প্রবাহ বাধা প্রধানকারি ডিভাইস-কে Resistor বলে।

রেজিস্ট্যান্সঃ

পরিবাহির যে বৈশিষ্ট্যর কারনে বিদ্যুৎ প্রবাহ বাধাগ্রস্থ হয় উক্ত বৈশিষ্ট্যকে রেজিস্ট্যান্স বলে।

প্রকাশ , প্রতীক ও একক:

রোধকে R দিয়ে প্রকাশ করে হয়ে থাকে।  এর একক ওহম (Ω) । নিচের চিত্রের মধ্যে প্রতীক দেওয়া হলো যেগুলো বিভিন্ন সার্কিট বোর্ড ও সার্কিট ডায়াগ্রামে ব্যবহার করা হয়ে থাকে।

প্রকারভেদঃ  

Resistor কে মুলত দুই প্রকার

  1. ফিক্সড রেজিস্টর
    • কার্বন কম্পোজিট
    • কার্বন পাইল
    • কার্বন ফিল্ম
    • প্রিন্টেড কার্বন
    • থিক এবং ফিল্ম
    • মেটাল ফিল্ড
    • মেটাল অক্সাইড ফিল্ড
    • ওয়্যার উন্ড
    • ফয়েল
  2. ভেরিয়েবল রেজিস্টর
    • এডজাস্টেবল
    • পটেনশিওমিটার
    • রেজিস্ট্যান্স ডিকেড বক্স

ফিক্সড রেজিস্টর:

যে Resistor এর মান ফিক্সড থাকে বা যে রেজিস্টরের মান তৈরির সময় নির্দিষ্ট করে দেওয়া হয় এবং যার মান পরিবর্তন করা সম্ভপ না তাকে ফিক্সড বা অপরিবর্তনশীল Resistor বলা হয়ে থাকে।

Resistor
Resistor

ভেরিয়েবল রেজিস্টর:

যে রেজিস্টরের মান প্রয়োজন অনুসারে কমানো-বাড়ানো সম্ভপ তাকে ভেরিয়েবল রেজস্টর বা পরিবর্তনশীল রেজিস্টর বলে।

Resistor

রেজিস্টরের কাজঃ

সার্কিটে কারেন্ট প্রবাহ বাধা প্রধান করা বা ভোল্টেজ ড্রপ ঘটানো রেজিস্টরের প্রধান কাজ। এখন প্রশ্ন আসতে পারে কেন সার্কিটে বা কোন পার্টসকে কম ভোল্ট বা কারেন্ট প্রবাহে বাধা প্রধান করার প্রয়োজন পরে।

তাহলে একটি উদাহরন এর মাধ্যমে বলি, ধরুন একটা সার্কিটে এল ই ডি আছে ( লাইট ইমেটিং ডায়োড ) যার ভোল্টেজ রেঞ্জ ১.৫ থেকে ৩ ভোল্ট। কোন কারনে যদি সোর্স ভোল্টেজ ৩ ভোল্টের বেশি চলে আসে তখন কম্পোনেন্ট (এল ই ডি ) টি নষ্ট হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

এটি যাতে না ঘটে সে জন্য রেজিস্টর ব্যবহার করা হয়। Resistor এল ই ডি ক্ষেত্রে ৩ ভোল্টের বেশি ভোল্টেজ কে ড্রপ করে দিবে। রেজিস্টর প্রয়োজন মোতাবেক কারেন্ট ও ভোল্টেজ সরবরাহ করে থাকে।

এটি শুধুমাত্র একটি এল ই ডি ক্ষেত্রে  উদাহরন। Resistor মূলত সকল ক্ষেত্রে এই ধরনের কাজ করে থাকে।

Resistor সার্কিটে সংযোগ পদ্ধতিঃ

সিরিজ সার্কিটে সংযোগ:

সিরিজ একটি ইংরেজি শব্দ যার বাংলা অর্থ হলো ধারাবাহিকভাবে।  তাহলে এই ক্ষেত্রে একাদিল লোড (রেজিস্টর) একের পর এক বৈদ্যুতিক সোর্সের সাথে সংযুক্ত করে কারেন্ট প্রবাহের একটি পথ তৈরি করা হয়।

Resistor

প্যারালাল সার্কিটে সংযোগ:

একাদিক লোড (রেজিস্টর) বৈদ্যুতিক উৎসের সাথে আড়াআড়িতে এমনভাবে (নিচের চিত্রের মতো) সংযুক্ত করা হয় যাতে কারেন্ট প্রবাহের একাদিক পথ থাকে।

Resistor

 

রেজিস্টরের মান নির্ণয় পদ্ধতি লেখাটি পড়তে এখানে ক্লিক করুন।

আমরা এই লেখাতে শুধু রেজিস্টরের কিছু বেসিক বিষয় নিয়ে আলোচনা করেছি। আমাদের পরের লেখাটি হবে রেজিস্টরের মান নির্ণয় কালার কোডের মাধ্যমে এবং মাল্টিমিটার ব্যবহার করে।

Resistor নিয়ে কোন প্রশ্ন থাকলে আপনাদেরকে অনুরোধ রইলো কমেন্ট করার। আপনারা আমদেরকে ভালো লাগা বা খারাপ লাগার বিষয়গুলো জানাতে পারেন। আর লেখা গুলো ভালো লাগলে আপনাদেরকে অনুরোধ রইলো শেয়ার করতে।

সোর্সঃ ওয়িকিপিডিয়া

রেজিস্টর নিয়ে ভিডিও দেখুন

19 COMMENTS

    • vai, pdf akare lagle obosshoi dibo… ekto opekkha koren ami ai file ti next week er betore pdf kore ai post ti update korbo..

  1. রেজিস্টন্স কোন তারে বেসি থাকে মোটা তারে নাকি চিকন তারে?

    • রেজিস্ট্যান্স মোটা তারের চেয়ে চিকন তারে বেশি হয়ে থাকে। চিকন তারে ইলেকট্রন প্রবাহ মোটা তারের তুলনায় কম হয়ে থাকে।

  2. Comment:১২ ভোল্ট ব্যাটারি চার্জ করতে কি কি পার্স লাগে

    • ট্রান্সফরমার, ডায়োড, ক্যাপাসিটর লাগবে।

  3. আপনাদের প্রত্যেকটি টপিক যাতে আমরা পিডিএফ আকারে সেভ করতে পারি তাহার কোন ব্যবস্থা করুন । তাহলে অনেক ভালো হবে

    • জি ভাই, ধীরে ধীরে পিডিএফ আকারে দেওয়ার চেষ্টা করছি। প্রতিদিন চোখ রাখুন। একটু সময় লাগবে ভাইয়া।

    • চেষ্টা করছি ভাইয়া। সপ্তাহে অন্তত একটি লেখা আমরা প্রকাশ করে থাকি।

  4. মানব দেহের রেজিস্ট্যান্স কত?

    • The NIOSH states “Under dry conditions, the resistance offered by the human body may be as high as 100,000 ohms. Wet or broken skin may drop the body’s resistance to 1,000 ohms,” adding that “high-voltage electrical energy quickly breaks down human skin, reducing the human body’s resistance to 500 ohms”.

  5. খুব ভালো আরো ভালো ভালো তথ্য আমাদের জানাবেন।

    • চেষ্টা করছি, ভবিষ্যতে আরো তথ্য থাকবে।

  6. ভাই ১২ ভোল্ট ডি সি ফ্যান। যেটার মোটরের ওয়াট ৫। আমি ব্যাটারি ব্যাকআপ বেশি পাবার জন্য এই মোটরে ৫ ওয়াট ১০ ওহম এর পাথর/চিনামাটির তৈরি সাদা রেজিস্টর গুলো লাগাইছি এতে করে আমার ফ্যান একটু কম ঘুরছে এটা আমার কোনো প্রবলেম নয়। আমার প্রশ্ন হলো আমি যে রেজিস্টর ব্যাবহার করতেছি এতে আমার ব্যাটারি খরচ কি কম হচ্ছে?

    উত্তর দিলে খুশু হবো।

  7. আপনাদের লেখা অনেক বই এর তুলনায় ভালো। সহজ ভাষার কারনে বুজতে সহজ হয়।

  8. 2sc5200 ট্রানসিসটর এর পার্টস বিহিন এমপ্লিফায়ার সারকেট কি বাংলাদেশ বাজারে কিন্তে পাওয়া যায়, প্লিজ ভাইয়া জানাবেন,

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here