সংক্ষিপ্ত প্রশ্নোত্তর পর্ব-৪ | পরিবাহী ও তড়িৎ প্রবাহ

0
294

EEE Job Preparation

সংক্ষিপ্ত প্রশ্নোত্তর পর্ব-৪

টপিকঃ পরিবাহী ও তড়িৎ প্রবাহ

প্রশ্ন ৪১ঃ পরিবাহী (Conductor) কাকে বলে?

উত্তরঃ যে পদার্থের মধ্য দিয়ে কারেন্ট বা তড়িৎ প্রবাহ খুব সহজে চলাচল করতে পারে তাদেরকে পরিবাহী বলা হয়।
অন্যভাবে বলা যায়,
যে পদার্থের পরমাণুতে মুক্ত ইলেক্ট্রন কণার সংখ্যা বেশি এবং তড়িৎ প্রবাহের বিরুদ্ধে খুব কম বাধা প্রদান করে থাকে সেই পদার্থকে পরিবাহী পদার্থ বলে।
যেমনঃ সোনা, রুপা, তামা, লোহা, দস্তা, টাংস্টেন, নিকেল ইত্যাদি।

প্রশ্ন ৪২ঃ তড়িৎ প্রবাহ কি এবং কত প্রকার?

উত্তরঃ কোন পরিবাহীর মধ্য দিয়ে মুক্ত ইলেকট্রন প্রবাহের হারকে তড়িৎ প্রবাহ বা কারেন্ট বলে।

তড়িৎ প্রবাহ বা কারেন্ট ২ প্রকার-

১. একমুখী বা ডিসি (Direct Current) প্রবাহ
২. পর্যায়বৃত্ত বা এসি (Alternating Current) প্রবাহ

একমুখী বা ডিসি প্রবাহে তড়িৎ প্রবাহের দিকের কোনো পরিবর্তন হয় না অর্থাৎ তড়িৎ প্রবাহ সব সময় একই দিকে প্রবাহিত হতে থাকে।
অন্যদিকে এসি প্রবাহের সময় তড়িৎ প্রবাহের দিক পরিবর্তিত হয়।

প্রশ্ন ৪৩ঃ কয়েকটি তড়িৎ উৎসের নাম বল।

উত্তরঃ কয়েকটি তড়িৎ উৎস বা current source হলো-
ব্যাটারী, জেনারেটার, থার্মোকাপল ইত্যাদি।

প্রশ্ন ৪৪ঃ কয়েকটি তড়িৎ প্রবাহের ব্যবহার বল।

উত্তরঃ তাপ উৎপাদন, বাতি প্রজ্জলন, ওয়েন্ডিং, মোটর পরিচালনা, ব্যাটারী চার্জিং, তড়িৎ লেপন, রিলে, টেলিফোন, ইত্যাদিসহ আমাদের দৈনন্দিন জীবনের সকল বৈদ্যুতিক সরঞ্জামাদিতে তড়িৎ প্রবাহের ব্যবহারের ব্যবহার রয়েছে।

প্রশ্ন ৪৫ঃ তড়িৎ প্রবাহের আউটপুট বা ফল কী কী?

উত্তরঃ

  • তাপীয় ফলঃ বাতি, হিটার, ফিউজ ইত্যাদি।
  • চৌম্বকীয় ফলঃ পাখা, মোটর, বৈদ্যুতিক ঘন্টা ইত্যাদি।
  • রাসায়নিক ফলঃ ব্যাটারী, চার্জিং, তড়িৎ-বিশ্লেষণ, তড়িৎলেপন ইত্যাদি।
  • শারীরবৃত্তীয় ফলঃ তড়িতাঘাত এবং
  • এক্স-রে উৎপাদন।

প্রশ্ন ৪৬ঃ ডিসি কোথায় কোথায় ব্যবহার করা হয়?

উত্তরঃ

  • ব্যাটারী চার্জিং
  • তড়িৎ লেপন
  • তড়িৎ বিশ্লেষণ
  • রিলে
  • সিনেমা প্রজেক্টর ইত্যাদি।

প্রশ্ন ৪৭ঃ এসি কোথায় কোথায় ব্যবহার করা হয়?

উত্তরঃ

  • রেফ্রিজারেটর
  • মোটর
  • টিভি
  • রেডিও
  • পাখা
  • গৃহস্থালী সামগ্রী ইত্যাদি।

প্রশ্ন ৪৮ঃ কোন বাসা বাড়ির সাপ্লাই এসি নাকি ডিসি সাধারণত তা কি দেখে বুঝা যায়?

উত্তরঃ ওই বাড়ির পাখা ও টিউবলাইটের কানেকশন দেখে।

প্রশ্ন ৪৯ঃ রেজিস্টেন্সের উত্তাপের গুণাঙ্ক কাকে বলে?

উত্তরঃ রোধের প্রতি ওহমে প্রতি ডিগ্রী তাপমাত্রা বৃদ্ধির জন্য যে পরিমাণ রোধ বৃদ্ধি পায় তাকে উত্তাপের গুনাঙ্ক বলে। যা আলফা দ্বারা প্রকাশ করা হয়।

প্রশ্ন ৫০ঃ লেঞ্জের সূত্রটি লিখ।

উত্তরঃ তড়িৎ চুম্বকীয় আবেশের দ্বারা আবিষ্ট তড়িৎ প্রবাহের অভিমুখ এমন হবে যে, যে কারণে প্রবাহ সৃষ্টি হয় সেই কারণকে প্রবাহ সর্বদা বাধা দেবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here