করোনা ইফেক্ট, স্কিন ইফেক্ট, প্রক্সিমিটি ইফেক্ট, ফেরান্টি ইফেক্ট নিয়ে আলোচনা

2
389
করোনা

এই লেখাটিতে করোনা ইফেক্ট, স্কিন ইফেক্ট, প্রক্সিমিটি ইফেক্ট, ফেরান্টি ইফেক্ট, ক্রিটিকাল ডিসরাপ্টিভ ভোল্টেজ, ভিজুয়াল ক্রিটিকাল ভোল্টেজ ইত্যাদি বিষয় নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে।

  1. লাইনে করোনার ইফেক্ট ও করোনার প্রভাব? 
  2. করোনা এর সুবিধা ও অসুবিধা সমূহ।
  3. ক্রিটিক্যাল ডিসরাপ্টিভ ভোল্টেজ ও ভিজুয়াল ক্রিটিক্যাল ভোল্টেজ।
  4. স্কিন ইফেক্ট। 
  5. ট্রান্সমিশন লাইনে স্কিন ইফেক্টের প্রভাব ও স্কিন ইফেক্ট কমানোর উপায়? 
  6. প্রক্সিমিটি ইফেক্ট। 
  7. প্রক্সিমিটি ইফেক্টের প্রভাব ও কমানোর উপায়।  
  8. ফেরান্টি ইফেক্ট

করোনা ইফেক্ট 

করোনা ইফেক্ট (Corona Effect): যখন দুটি কন্ডাক্টরের এস্পেসিং ব্যাসের তুলনায় বেশি অবস্থায় রেখে তাদের আড়াআড়ি AC Voltage প্রয়োগ করে ধীরে ধীরে বৃদ্ধি করা হয় তখন একটি বিশেষ পর্যায় আসে।

করোনা

এই বিশেষ পর্যায় কন্ডাক্টরের চারপাশের বাতাস Electrostatic stress হয়ে আয়নিত হয় এবং বাতাসে ইন্সুলেশন ভেঙ্গে যায়। এ অবস্থায় হালকা বেগুনি রশ্মি দেখা যায় এবং ওজন গ্যাসের সৃষ্টি হয় সেটাই করোনা নামে পরিচিত।

করোনার প্রভাব (Influence of Corona)

১. কন্ডাকটরের চারপাশে বেগুনি রশ্মি দেখা যায়।
২. ওজন গ্যাসের সৃষ্টি হয়।
৩. পাওয়ার লস হয়।
৪. হারমোনিক্স কারেন্টের সৃষ্টি হয়।

করোনা এর সুবিধা (Advantage of Corona): 

১. সার্জ ভোল্টেজ এর ফলে সৃষ্ট ট্রানজিয়েন্ট ইফেক্ট কে সীমিত রাখে বলে সুইচ গিয়ার এর সেফটি বাল্ব হিসেবে কাজ করে
২. করোনার কারনে পরিবাহিদ্বয়ের মধ্যে ইলেকট্রোস্ট্যাটিক স্ট্রেসের মান হ্রাস পেয়ে থাকে। কারন এসময় পরিবাহীর চার পাশের বাতাস পরিবাহী হিসেবে কাজ করে এবং পরিবাহীর ভার্চুয়াল ব্যাস বৃদ্ধি পায়।

করোনা এর অসুবিধা (Disadvantage of Corona)

১. পাওয়ার লস হয়।
২. দক্ষতা হ্রাস পায়।
৩. ওজন গ্যাসের সৃষ্টি হয়।
৪. ক্যামিক্যাল রিএকশন এর কারণে পরিবাহী ক্ষয়প্রাপ্ত হয়।
৫. নিকটবর্তী কমিউনিকেশন লাইনে বিঘ্ন সৃষ্টি করে।
৬. ইনসুলেটর ও পেজের মধ্যে ফ্লাশ ওভার ভোল্টেজ এর সৃষ্টি হয়।
৭. প্রচুর হার্মনিক্স এর উৎপত্তি হয়।

ক্রিটিক্যাল ডিসরাপ্টিভ ভোল্টেজ

ক্রিটিক্যাল ডিসরাপ্টিভ ভোল্টেজ (Critical Disruptive Voltage): সর্বনিম্ন যে ফেজ-টু-নিউট্রাল ভোল্টেজে করোনা সংঘটিত হয় তাকে ক্রিটিক্যাল ডিসরাপ্টিভ ভোল্টেজ বলা হয়।

ভিজুয়াল ক্রিটিক্যাল ভোল্টেজ

ভিজুয়াল ক্রিটিক্যাল ভোল্টেজ (Visual Critical Voltage): সর্বনিম্ন যে ফেজ-টু-নিউট্রাল ভোল্টেজে করনার আলো চারপাশে দৃশ্যমান হয় তাকে ভিজুয়াল ক্রিটিক্যাল ভোল্টেজ বলা হয়।

স্কিন ইফেক্ট (Skin Effect)

স্কিন ইফেক্ট (Skin Effect)

করোনা

এসি বিদ্যুৎ প্রবাহ কোন পরিবাহীর মধ্য দিয়ে প্রবাহিত হওয়ার সময় সে পরিবাহির ভিতরে প্রবেশ না করে উহার সারফেস দিয়ে প্রবাহিত হতে চেষ্টা করে এটাকে স্কিন ইফেক্ট বলে। স্কিন ইফেক্ট এর কারনে লাইনের রেজিস্ট্যান্স বৃদ্ধি পায়, ফলে লাইন লসও বৃদ্ধি পায়।

 

ট্রান্সমিশন লাইনে স্কিন ইফেক্টের প্রভাব (Influence of Skin Effect in Transmission Line):

স্কিন ইফেক্ট এর কারনে লাইনে রেজিস্টেন্স বৃদ্ধি পায় ফলে যখন কারেন্ট প্রবাহিত হয় তখন লসও বৃদ্ধি পায়। লাইনের ব্যাস বৃদ্ধি পেলে স্কিন ইকফেক্টও বৃদ্ধি পায়। এছাড়া ট্রান্সমিশন লাইন এ কন্ডাক্টরের আকারের উপর স্কিন ইফেক্ট নির্ভর করে।

স্কিন ইফেক্ট কমানোর উপায় (Way of Reduce the Skin Effect): 

১. কন্ডাক্টরের ব্যাসার্ধ কমিয়ে।
২. নন ম্যাগনেটিক পদার্থ ব্যবহার করে।
৩. ফাপা সিলিন্ডার আকৃতির কন্টাক্টর ব্যবহার করে।
৪. ব্যারেল আকৃতির কন্টাক্টর ব্যবহার করে।
৫. স্ট্যান্ডার্ড কন্ডাকটর ব্যবহার করে।
৬. এ্যালমুনিয়াম কন্ডাকটর ব্যবহার করে।

প্রক্সিমিটি ইফেক্ট (Proximity Effect)

যখন একটি বিদ্যুৎ-পরিবাহীর পাশে আরেকটি বিদ্যুৎ-পরিবাহী থাকে তখন এর ফ্লাক্স পাশের কারেন্ট-পরিবাহীতে ইন্ডিউসড হয়। এই ফ্লাক্স এর ফলাফল উভয় কন্ডাকটরের দূরবর্তী অর্ধাংশের চেয়ে নিকটবর্তী অর্ধাংশে বেশি দেখা দেয়। ফলে অসম কারেন্ট বন্টন হতে থাকে এবং স্কিন ইফেক্টের ন্যায় রেজিস্ট্যান্স বৃদ্ধি পায়। এই ঘটনাকে প্রক্সিমিটি ইফেক্ট বলে।

করোনা

(বিঃদ্রঃ প্রক্সিমিটি ইফেক্টের সময় যদি উভয় কারেন্ট বহিঃ কন্ডাক্টরে প্রবাহিত কারেন্টের বিপরীতমুখী থাকে তাহলে উভয় কন্ডাক্টরের পাশাপাশি সংযুক্ত অংশের দিকে কারেন্ট ডেনসিটি বৃদ্ধি পায়। আর যদি কারেন্ট একই দিকে প্রবাহিত হয় তাহলে পাশাপাশি স্থাপিত অবস্থায় উভয় কন্ডাক্টরের দূরবর্তী অংশের দিকে কারেন্ট ডেনসিটি বৃদ্ধি পায়।)

করোনা

প্রক্সিমিটি ইফেক্টের প্রভাব (Influence of Proximity Effect):

প্রক্সিমিটি ইফেক্টের প্রভাবে কন্ডাক্টরে অসম কারেন্ট বন্টনের সৃষ্টি হয় ও রেজিস্টেন্স বৃদ্ধি পায় এবং সেলফ রিয়্যাকট্যান্স এর মান হ্রাস পায়।

প্রক্সিমিটি ইফেক্ট কমানোর উপায় (Way of Reduce the Proximity Effect):

১. ফ্রিকুয়েন্সি রেঞ্জ কম রেখে।
২. কন্ডাক্টরের এস্পেসিং বৃদ্ধি করে।
৩. স্ট্যান্ডার কন্ডাকটর ব্যবহার করে।

ফেরান্টি ইফেক্ট (Ferranti Effect):

মাঝারি ও লম্বা ট্রান্সমিশন লাইন লোড বিহীন অথবা খুব অল্প লোড সংযুক্ত থাকলে একটি লিডিং চার্জিং কারেন্ট প্রবাহের কারণে প্রেরনপ্রান্ত অপেক্ষা গ্রহণ প্রান্তে ভোল্টেজের মান বেশি হতে দেখা যায় এই ফেনোমেনন কে ফেরান্টি ইফেক্ট বলে।

2 COMMENTS

  1. vaia apnader website theke copy kora jay na kano

    • অনেকেই পোস্ট কপি করে বিভিন্ন ওয়েবসাইটে তাদের নাম বলে চালায় এ কারনে আমরা কপি অপশন বন্ধ করে রাখছি। আপনি অনুগ্রহ করে বলুন আপনার কোন লেখা দরকার। আমরা প্রয়োজনে পিডিএফ করে দিবো।

LEAVE A REPLY