ট্রান্সফরমারের ই.এম.এফ সমীকরন | EMF Equation of a Transformer

ট্রান্সফরমারের ই এম এফ সমীকরন:

ধরা যাক,

N1 =  ট্রান্সফরমারের প্রাইমারি ওয়াইন্ডিং এর পাকসংখ্যা

N2 =  সেকেন্ডারি ওয়াইন্ডিং এর পাকসংখ্যা 

E1 = প্রাইমারি ওয়াইন্ডিং এর আবিষ্ট তড়িচ্চালক বল

E2 = সেকেন্ডারি ওয়াইন্ডিং এর আবিষ্ট তড়িচ্চালক বল

Φm = উভয় ওয়াইন্ডিং এর সর্বোচ্চ ফ্লাক্স

f = এসি সাপ্লাই এর কম্পাঙ্ক (ফ্রিকোয়েন্সি)

এখন ট্রান্সফরমারের প্রাইমারিতে এসি সাপ্লাই দেয়ার ফলে প্রাপ্ত ম্যাগনেটিক ফ্লাক্স বনাম সময়ের লেখচিত্র বিবেচনা করা যাক।

চিত্রঃ ম্যাগনেটিক ফ্লাক্স বনাম সময়ের লেখচিত্র

চিত্রে X অক্ষ বরাবর সময় এবং Y অক্ষ বরাবর ম্যাগনেগটিক ফ্লাক্স প্লট করা হয়েছে। ধরা যাক ট্রান্সফরমারের এসি ভোল্টেজের একটি পূর্ন সাইকেল সম্পন্ন হতে T পরিমান সময় লাগে। চিত্র হতে দেখা যাচ্ছে যে ম্যাগনেটিক ফ্লাক্স শূন্য হতে সর্বোচ্চ মানে (Φm) পৌছতে সম্পূর্ন এসি সাইকেলের একচতূর্থাংশ সময় লাগে।

আমরা জানি, সময় এবং ফ্রিকোয়েন্সি একে অপরের বিপরীত।

অর্থ্যাৎ,

T = 1f

সুতরাং, ফ্লাক্সের গড় পরিবর্তনের হার= ⁄dt = Φm / (T/4) = Φm / (1/4f) = 4fΦm ওয়েবার/সেকেন্ড অথবা ভোল্ট   

আমরা জানি ট্রান্সফরমারের আবিষ্ট তড়িচ্চালক বল এর পাক সংখ্যা ফ্লাক্স পরিবর্তনের হারের উপরে নির্ভর করে।

সুতরাং, প্রতি পাকে গড় তড়িচ্চালক বল = 4fΦm

ফ্লাক্স সাইনুসয়ডালি পরিবর্তন হলে আবিষ্ট তড়িচ্চালক বলের আর.এম.এস মান গড় তড়িচ্চালক বলকে ফর্ম ফ্যাক্টর দ্বারা গুণ করে পাওয়া যায়।

যেখানে, ফর্ম ফ্যাক্টর = আর.এম.এস মান গড় মান = 1.11

অর্থ্যাৎ, প্রতি পাকে আর.এম.এস তড়িচ্চালক বল = 1.11 x 4 fΦm

সুতরাং প্রাইমারি ওয়াইন্ডিং এ আর.এম.এস তড়িচ্চালক বল = প্রতি পাকে আর.এম.এস তড়িচ্চালক বলmXপ্রাইমারি ওয়াইন্ডিং এ পাক সংখ্যা = 4.44N1m  

অনুরূপভাবে, সেকেন্ডারি ওয়াইন্ডিং এ আর.এম.এস তড়িচ্চালক বল= 4.44 N2m

2 COMMENTS

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here