বাংলাদেশের পাওয়ার কোম্পানিগুলোর পরিচিতি (পর্ব-১) | BPDB, APSCL, EGCB, RPCL, NWPGCL, PGCB

0
2737

প্রিয় পাঠকবৃন্দ, আজ জরুরি একটি আর্টিকেল নিয়ে হাজির হয়েছি আপনাদের সামনে। আপনি বাসায় যে ফ্যান, লাইট, ফ্রিজ চালাচ্ছেন সেসব ডিভাইস চালানোর জন্য মূল চাহিদা বিদ্যুৎ। আর এই বিদ্যুৎ আপনার কাছে পৌঁছানোর জন্য বহু বিদ্যুৎ কোম্পানি নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে।

চলছে শীতকাল। সবজির বাজার ফুলকপি দিয়ে ভর্তি। কিন্তু এই ফুলকপি কেউ চাষাবাদ করে ক্ষেতে উৎপাদন করেছে, কেউ আরতে মজুদ করেছে আবার কেউ আরত থেকে কিনে ভোক্তাদের কাছে পৌঁছে দিচ্ছে। তেমনিভাবে বিদ্যুৎ ও সরাসরি আপনার বাসা পর্যন্ত আসেনা। এই বিদ্যুৎ আপনার বাসা পর্যন্ত পৌছাতে তিন ধরনের কোম্পানি নিয়োজিত। যথাঃ

  • উৎপাদন/জেনারেশন
  • সঞ্চালন/ট্রান্সমিশন
  • বিতরণ/ডিস্ট্রিবিউশন

এই পর্যন্ত আমরা অনেকেই জানি যে কেউ জেনারেটিং সাবস্টেশনে জেনারেটরের মাধ্যমে বিদ্যুৎ উৎপাদন করছে, কেউ সঞ্চালন করছে আবার কেউ বিতরণ করছে। কিন্তু এই কাজে নিয়োজিত কোম্পানিগুলোর নাম অনেকেরই জানা নেই। কেউ আবার কয়েকটার নাম জানলেও বাকিগুলোর নাম জানেননা।

প্রথমে জানব বাংলাদেশে বিদ্যুৎ উৎপাদনে নিয়োজিত কোম্পানিগুলোর নাম। সেগুলো হল:

BPDB (Bangladesh Power Development Board)

  • পিডিবি দেশের ৪০ ভাগ ভোক্তাদের সেবা প্রদান করে থাকে।
  • দেশে বিদ্যুৎ সরবরাহ লাইন রয়েছে ২০৯.৯৩২ কিলোমিটার, এর মধ্যে পিডিবির লাইন ২৯.১৭৬ কিলোমিটার।
  • তবে পাওয়ার গ্রীডে সরবরাহকৃত বিদ্যুতের অধিকাংশই পিডিবি উৎপাদন করে থকে।
  • উৎপাদন ছাড়াও পিডিবি বিদ্যুৎ বিতরণের কাজেও অংশ নেয়।
পাওয়ার কোম্পানি
বিপিডিবি
বিপিডিবি

APSCL (Ashuganj Power Station Company Ltd)

  • আশুগঞ্জ পাওয়ার স্টেশন কোম্পানী লি: একটি সরকারি মালিকানাধীন পাবলিক লিমিটেড কোম্পানী এবং বাংলাদেশের সর্ববৃহৎ পাওয়ার হাব।
  • এর ০৮ টি ইউনিটের বর্তমান মোট বিদ্যুৎ উৎপাদন ক্ষমতা ১৬৯০ মেগাওয়াট।
  • এই পাওয়ার স্টেশন দেশের মোট চাহিদার ১৫% -এরও বেশী বিদ্যুৎ উৎপাদন করে।
  • বাখরাবাদ গ্যাস ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানী লিঃ কর্তৃক সরবরাহকৃত প্রাকৃতিক গ্যাস এই বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্রের প্রধান জ্বালানী হিসেবে ব্যবহৃত হচ্ছে। 
পাওয়ার কোম্পানি
এ পি এস সি এল
এ পি এস সি এল

EGCB (Electricity Generation Company of Bangladesh Ltd)

  • প্রাথমিক পর্যায়ে তিনটি বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্র নির্মাণ প্রকল্প বাস্তবায়ন শুরু করার মাধ্যমে ইজিসিবির কার্যক্রম শুরু হয়।
  • প্রকল্প তিনটির মধ্যে সিদ্ধিরগঞ্জ ২১২০ মেঃওঃ পিকিং পাওয়ার প্লান্ট (পিপিপি) হতে ০৫ ফেব্রুয়ারী ২০১২ তারিখে, হরিপুর ৪১২ মেঃওঃ কম্বাইন্ড সাইকেল পাওয়ার প্লান্ট (সিসিপিপি) হতে ০৬ এপ্রিল ২০১৪ তারিখে, সিদ্ধিরগঞ্জ ৩৩৫ মেঃওঃ সিসিপিপি এর সিম্পল সাইকেল (গ্যাস টারবাইন) হতে ০১ মে ২০১৮ তারিখে এবং কম্বাইন্ড সাইকেল (স্টীম টারবাইন) হতে ০৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯ তারিখে বাণিজ্যিকভাবে বিদ্যুৎ উৎপাদন শুরু হয়।
  • ইজিসিবি লিঃ এর তিনটি বিদ্যুৎ কেন্দ্রের বর্তমান মোট বিদ্যুৎ উৎপাদন ক্ষমতা ৯৫৮ মেঃওঃ।      
পাওয়ার কোম্পানি
ইজিসিবি
ইজিসিবি

B-R Power generation Ltd

  • বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড (বাবিউবো) ও রুরাল পাওয়ার কোম্পানি লিঃ (আরপিসিএল) এর যৌথ উদ্যোগে সমঅংশীদারিত্বের ভিত্তিতে ২০১০ সালের ১০ নভেম্বর যৌথ মূলধনী কোম্পানি ও ফার্মসমূহের নিবদ্ধক এর দপ্তর হতে বিআরপিএল নিবন্ধিত হয়।
  • এটির জেনারশন প্লান্টের ক্যাপাসিটি ১৫০ মেগাওয়াট।
পাওয়ার কোম্পানি
বি আর পাওয়ার জেনারেশন
বি আর পাওয়ার জেনারেশন

Rural Power Company Ltd

  • বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড (বাপবিবোর্ড) এবং ০৫ (পাঁচ) টি পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি (পবিস) আরপিসিএল এর উদ্যোক্তা।
  • পরবর্তীতে পর্যায়ক্রমে আরো ০৮ (আট) টি পবিস অংশীদারিত্ব লাভ করায়, বর্তমানে মোট ১৩ (তের) টি পবিস এবং বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড (বাপবিবোর্ড) আরপিসিএল এর শেয়ারহোল্ডার।
  • কোম্পানীটি বর্তমানে উহার মালিকানাধীন ০৪ (চার) টি বিদ্যুৎ কেন্দ্রের মাধ্যমে ৩৯২ মেঃওঃ এবং যৌথ উদ্যোগে প্রতিষ্ঠিত বিপিডিবি-আরপিসিএল পাওয়ারজেন লিমিটেড এর বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্রের মাধ্যমে ১৫০ মেঃওঃ বিদ্যুৎ উৎপাদন করে তা জাতীয় গ্রীডে সরবরাহ করে আসছে।
পাওয়ার কোম্পানি
আর পি সি এল
আর পি সি এল

North West Power Generation Company Ltd

  • গত ২৮.০৮.২০০৭ ইং তারিখে বাংলাদেশ সরকার প্রণীত বিদ্যুৎ খাত সংস্কার নীতিমালা এবং কোম্পানি আইন ১৯৯৪ এর আওতায় নর্থ-ওয়েস্ট পাওয়ার জেনারেশন কোম্পানি লিঃ (বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের একটি প্রতিষ্ঠান) গঠিত হয়।
  • কোম্পানির বর্তমান বিদ্যুৎ উৎপাদন ক্ষমতা ১৮১৩ মেঃওঃ।
  • আশা করা যায়, ২০২৫ সালের মধ্যে কোম্পানির বিদ্যুৎ উৎপাদন ক্ষমতা ১০,০০০ মেঃওঃ এর উর্ধ্বে হবে।
পাওয়ার কোম্পানি
এন ডব্লিউ পি জি সি এল
এন ডব্লিউ পি জি সি এল

RPCL-NORINCO International Power Ltd

  • এটি একটি জয়েন্ট ভেঞ্চার পাওয়ার জেনারেশন কোম্পানি। আর পি সি এল এবং চাইনিজ কোম্পানি নরিনকোর যৌথ উদ্যেগে এই কোম্পানি প্রতিষ্ঠিত হয়।
  • এটির উৎপাদন সক্ষমতা ১৩২০ মেগাওয়াট।

বর্তমানে বাংলাদেশের একমাত্র বিদ্যুৎ সঞ্চালন কোম্পানি হচ্ছেঃ

PGCB (Power Grid Company Of Bangladesh)

  • সমগ্র বাংলাদেশে বিদ্যুৎ সঞ্চালনের কাজ করে পাওয়ার গ্রীড কোম্পানি অব বাংলাদেশ।
  • ১৯৯৪ সালে প্রতিষ্ঠানটির যাত্রা শুরু হয়।
  • পিজিসিবির ৪০০ কেভির ৮৬১ সার্কিট কিঃমিঃ, ২৩০ কেভির ৩৬৫৮ সার্কিট কিঃমিঃ, ১৩২ কেভির ৭৬৭১ সার্কিট কিঃমিঃ এর সঞ্চালন লাইন রয়েছে।
  • আর সাবস্টেশনের মধ্যে ৪০০/২৩০ কেভি সাবস্টেশন ৪টি, ৪০০/১৩২ কেভি ২টি, ২৩০/১৩২ কেভি সাবস্টেশন ২৮টি, ১৩২/৩৩ কেভি সাবস্টেশন ১৪৫ টি বিদ্যমান।
পাওয়ার কোম্পানি
পিজিসিবি
পিজিসিবি

আগামী পর্বে বিতরণ কোম্পানি নিয়ে আলোচনা হবে ইনশাল্লাহ।

পাওয়ার সিস্টেম নিয়ে আরো কিছু পোস্ট

ট্রান্সমিশন ও ডিস্ট্রিবিউশন দুই বন্ধুর পথ যাত্রার এক মজার কাহিনী

ট্রান্সমিশন লাইন ভোল্টেজ নির্ধারণ এবং তুলনামূলক আলোচনা

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here