অয়েল সার্কিট ব্রেকার / OCB নিয়ে সহজ ভাষায় আলোচনা

অয়েল সার্কিট ব্রেকার

অয়েল সার্কিট ব্রেকার/OCB হল প্রকারের সার্কিট ব্রেকার যা তেলকে আর্ক অবদমনের জন্য ডাইলেট্রিক বা ইন্সুলেটিং মিডিয়াম হিসাবে ব্যবহার করে। অয়েল সার্কিট ব্রেকারের কন্ট্যাক্টগুলো একটি অন্তরক তেলের মধ্যে আলাদা করা হয়। সিস্টেমে ত্রুটি দেখা দিলে সার্কিট ব্রেকারের কন্ট্যাক্টগুলো অন্তরক তেলের নিচে ওপেন অবস্থায় থাকে এবং তাদের মধ্যে আর্ক তৈরি হয় এবং চারপাশের তেলের মধ্যে তাপের কারণে গ্যাস সৃষ্টি হয়।

অয়েল সার্কিট ব্রেকার
অয়েল সার্কিট ব্রেকার

আর্ক কি?

আর্ক হল এক ধরনের ইলেকট্রিক্যাল ডিসচার্জ যা দুটো পরিবাহী ইলেকট্রোডের মধ্যে সৃষ্টি হয় এবং স্পার্ক তৈরি করে।

আর আর্ক সৃষ্টির দরুণ দুটো ইলেকট্রোডের মধ্যে যে ভোল্টেজ তৈরি হয় তাকে আর্কিং ভোল্টেজ বলে।

অয়েল সার্কিট ব্রেকারের প্রকারভেদ

অয়েল সার্কিট ব্রেকার দুটি বিভাগে বিভক্ত। যথাঃ

  • Bulk Oil Circuit Breaker
  • Low Oil Circuit Breaker

অয়েল সার্কিট ব্রেকারের গঠন

  • অয়েল সার্কিট ব্রেকার নির্মাণ খুব সহজ।
  • এটি একটি শক্তিশালী, আবহাওয়া নিরোধক ধাতব ট্যাঙ্কে আবদ্ধ কারেন্ট পরিবাহী কন্ট্যাক্টগুলো নিয়ে গঠিত এবং ট্যাঙ্কটি ট্রান্সফরমার পাইরিনল তেল দিয়ে পূর্ণ।
  • পাইরিনল তেল একটি আর্ক নির্বাপক মাধ্যম এবং আর্থ ও লাইভ লাইনের মধ্যে ইন্সুলেটিং মিডিয়াম হিসেবে কাজ করে থাকে।
  • তেলের শীর্ষে, ট্যাঙ্কে বাতাস পূর্ণ থাকে যা সৃষ্ট আর্কের চারপাশে গ্যাস গঠনে স্থানচ্যুত তেল নিয়ন্ত্রণ করতে এবং তেলের উপরের চলাচলের যান্ত্রিক শককে শোষণ করতে কাজ করে।
  • খুব উচ্চতর কারেন্ট বাধাগ্রস্থ হওয়ার কারণে সৃষ্ট কম্পনটি চালনার জন্য ব্রেকার ট্যাঙ্কটি সুরক্ষিতভাবে বোল্ট করা হয়।
  • তেল সার্কিট ব্রেকারটিতে গ্যাসের আউটলেট থাকে যা গ্যাসগুলি অপসারণের জন্য ট্যাঙ্ক কভারে লাগানো হয়।

অয়েল সার্কিট ব্রেকারের কার্যপ্রণালী

  • সাধারণ অপারেটিং কন্ডিশনে, অয়েল সার্কিট ব্রেকারের কন্ট্যাক্ট ক্লোজ অবস্থায় থাকে এবং কারেন্ট বহন করে।
  • সিস্টেমে যখন ত্রুটি দেখা দেয়, ব্রেকারে কন্ট্যাক্টগুলো আলাদা হয়ে চলে যায় এবং কন্ট্যাক্টগুলোর মধ্যে আর্ক সৃষ্টি হয়।
  • এই আর্ক সৃষ্টির ফলে প্রচুর পরিমাণে তাপ তৈরি হয় এবং তা খুব উচ্চ তাপমাত্রায় পৌঁছে যায় যা আশেপাশের তেলকে গ্যাসে পরিণত করে।
  • এইভাবে গ্যাসটি আর্ককে ঘিরে রাখে এবং চারদিকে এর বিস্ফোরক বৃদ্ধিকে দমন করে এবং তেলকে স্থানচ্যুত করে।
  • যখন স্থির এবং চলমান কন্ট্যাক্টগুলোর মধ্যকার দূরত্ব একটি নির্দিষ্ট মানে পৌঁছায়, তখন কারেন্ট এবং রিকভারি ভোল্টেজের উপর নির্ভর করে আর্ক অবদমিত হয়ে থাকে।
অয়েল সার্কিট ব্রেকার এর কার্যপ্রণালী
অয়েল সার্কিট ব্রেকারের কার্যপ্রণালী

অয়েল সার্কিট ব্রেকার অপারেশন খুব নির্ভরযোগ্য এবং এটি খুব সস্তা। অয়েল সার্কিট ব্রেকারের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বৈশিষ্ট্যটি হল চলমান কন্ট্যাক্টের ফলে সৃষ্ট আর্ক নিয়ন্ত্রণ করার জন্য কোনও বিশেষ ডিভাইস ব্যবহার করা হয় না। আর্ক অবদমনের মাধ্যম হিসাবে তেলটির কিছু সুবিধা এবং অসুবিধা রয়েছে।

আর্ক অবদমনের মাধ্যম হিসেবে তেলের সুবিধা

  • তেলের একটি উচ্চ ডাইলেট্রিক শক্তি রয়েছে এবং আর্ক দূর হবার পরে কন্ট্যাক্টগুলোর মধ্যে অন্তরক হিসেবে কাজ করে
  • সার্কিট ব্রেকারে ব্যবহৃত তেল কন্ডাক্টর এবং আর্থের মধ্যে খুব অল্পমানের ফল্ট ক্লিয়ারেন্সের নিশ্চয়তা দিয়ে থাকে।
  • হাইড্রোজেন গ্যাস ট্যাঙ্কে তৈরি হয় যার উচ্চ প্রসারণ হার এবং ভাল শীতলীকরণ বৈশিষ্ট্য রয়েছে।

আর্ক অবদমনের মাধ্যম হিসেবে তেলের অসুবিধা

  • এই সার্কিট ব্রেকারে ব্যবহৃত পাইরিনল তেলটি দাহ্য পদার্থ। তাই এটি আগুনের ঝুঁকির কারণ হতে পারে।
  • বাতাসের সাথে বিস্ফোরক মিশ্রণ তৈরি হওয়ার ঝুঁকি রয়েছে।
  • আর্ক সৃষ্টির সময় তেল ক্ষয়ের কারণে কার্বন কণা তৈরি হয় যা তেলকে দূষিত করে এবং তাই তেলের ডাইলেট্রিক শক্তি হ্রাস পায়।

অয়েল সার্কিট ব্রেকারের রক্ষণাবেক্ষণ

একটি সার্কিট ব্রেকার শর্ট সার্কিট কারেন্ট বা যেকোন ফল্ট মোকাবেলার পরে কখনও কখনও তাদের কন্ট্যাক্টগুলো আর্কের কারণে পুড়ে যেতে পারে। এছাড়াও, ডাইলেট্রিক তেলে থাকা কন্ট্যাক্টগুলো কার্বনযুক্ত হয়ে যায়, যার ফলে তার ডাইলেট্রিক শক্তি হ্রাস পায়। যার ফলে ব্রেকারের ক্ষয়ক্ষতির সম্ভবনা থাকে। অতএব, তেল এবং কন্ট্যাক্টগুলো পরীক্ষা এবং প্রতিস্থাপনের জন্য এটির রক্ষণাবেক্ষণ জরুরি।

Circuit breaker নিয়ে আরো কিছু পোস্ট

A,B,C,D,K,Z টাইপ MCB সার্কিট ব্রেকার ও সার্কিট ব্রেকার লকিং

ELCB এবং RCCB সার্কিট ব্রেকারের ৫টি পার্থক্য

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here