ট্রান্সমিশন লাইনে ব্যবহৃত অপটিক্যাল গ্রাউন্ড ওয়্যার | Optical Ground Wire

অপটিক্যাল গ্রাউন্ড ওয়্যার

অপটিক্যাল গ্রাউন্ড ওয়্যার / Optical Ground Wire – ট্রান্সমিশন লাইনের সাথে আমরা সবাই সুপরিচিত। রেলপথে, হাইওয়ে কিংবা নদীপথে যাওয়ার সময় এই লাইনগুলো আমাদের স্বাগত জানায়। তড়িৎ প্রকৌশলের ছাত্ররা তো বেশ মনোযোগ সহকারেই লাইনটি প্রত্যক্ষ করে থাকেন। ট্রান্সমিশন টাওয়ারের শীর্ষবিন্দু দিয়ে সরু এক ধরনের তার লক্ষ্য করেছেন নিশ্চয়ই। এই তারটির নাম OPGW, যার পূর্ণরুপ হল Optical Ground Wire (অপটিক্যাল গ্রাউন্ড ওয়্যার)।

অপটিক্যাল গ্রাউন্ড ওয়্যার এর কাজ এবং এরুপ নামকরণের কারণ

এটি মূলত অপটিক্যাল ফাইবার যার সাহায্যে গ্রীড সাবস্টেশানগুলোর মধ্যে যোগাযোগ স্থাপিত হয় এবং আর্থিং এর কাজেও এটি সাহায্য করে অর্থাৎ বজ্রপাতের দরুণ অতিরিক্ত প্রবাহ ও অবদমন করতে সক্ষম। এক ঢিলে দুই পাখি মারার মত। এজন্যই এর নামকরণ হয়েছে অপটিক্যাল গ্রাউন্ড ওয়ার।

অপটিক্যাল গ্রাউন্ড ওয়্যার এর গঠন ও প্রকৃতি

এটির গঠন টার্বুলার প্রকৃতির। একাধিক অপটিকাল ফাইবার গুচ্ছ দিয়ে এটি তৈরি হয়। এটি স্টিল ও এলুমিনিয়ামের লেয়ার দিয়ে বেষ্টিত। এর পরিবাহী অংশ গ্রাউন্ডিংয়ের এবং সিল্ড অংশটুকু বজ্রপাত নিরোধক হিসাবে কাজ করে৷ এটি খালি চোখে দেখতে অনেকটা ACSR (Aluminium Cable Steel Reinforced) Cable এর মতই। এতে বিদ্যমান সিংগেল মোড অপটিকাল ফাইবার হাইস্পীড ডাটা এবং ভয়েস দুটোই ট্রান্সমিশন করতে পারে৷ এই ধরনের ফাইবার এ ডাটা ট্রান্সমিশন লস এর পরিমাণ খুব ই কম।

অপটিক্যাল গ্রাউন্ড ওয়্যার
Optical Ground Wire এর প্রস্থছেদ

ইতিহাস

১৯৭৭ সালে ব্রিটিশ ইন্সুলেটেড ক্যালেন্ডারস ক্যাবলস কোম্পানি কতৃক এটি সর্বপ্রথম প্যাটেন্ট করা হয়। অতঃপর ১৯৮০ সাল থেকে এটি বহুলভাবে প্রচলিত হয়। ২০০০ সালে সমগ্র বিশ্বে ৬০ হাজার কি.মি অপটিক্যাল গ্রাউন্ড লাইন প্রতিস্থাপিত হয়। চীন সর্বপ্রথম এই ক্যাবলের মার্কেটিং শুরু করে।

অপটিক্যাল গ্রাউন্ড ওয়্যার প্রস্ততকরণ

৮ থেকে ৪৮ টি অপটিক ফাইবার একটি প্লাস্টিক টিউবে স্থাপন করা হয়। অতঃপর এই প্লাস্টিক টিউবটিকে অ্যালুমিনিয়াম কোটেড টিউবে প্রবেশ করানো হয়। গ্লাস ফাইবারের পীড়ন বা চাপ থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য এতে কিছু অতিরক্ত ফাইবার যুক্ত করা হয়। অতঃপর এতে এক প্রকার বাফার টিউব স্থাপন করা হয় যাতে বৃষ্টির পানি থেকে সুরক্ষিত থাকে, তারপর বাফার টিউব সহকারে এটিকে এলুমিনিয়াম স্টিল রেইনফোর্সড টাইপ ক্যাবলে প্রবেশ করানো হয়। ব্যাপারটি অনেকটা টুথ পিক বক্স এর মতই যেখানে অনেকগুলো টুথপিককে যেমন গুচ্ছাকারে আবদ্ধ করে একটি বেলনাকৃতির বাক্সে প্রবেশ করানো হয়। অপটিক ফাইবার বান্ডলে সর্বোচ্চ ১৪৪ টি অপটিকাল ফাইবার থাকতে পারে।

OPGW এর পূর্বে কোন প্রযুক্তি ব্যবহার করা হত ?

এই OPGW সাবস্টেশান টু সাবস্টেশান কমিউনিকেশান এর জন্য ব্যবহৃত অভিনব একটি প্রযুক্তি। এর পূর্বে যোগাযোগ রক্ষার জন্য পাওয়ার লাইন ক্যারিয়ার কমিউনিকেশান ব্যবহার করা হত। এই প্রক্রিয়ায় যোগাযোগের জন্য ওয়েব ট্র‍্যাপ ব্যবহার করা হয়।

 অপটিক্যাল গ্রাউন্ড ওয়্যার
পাওয়ার লাইন ক্যারিয়ার সিস্টেম

ওয়েব ট্র্যাপ কি?

পাওয়ার লাইন ক্যারিয়ার কমিউনকেশান সিস্টেমে বৈদ্যুতিক সিগনাল ও কমিউনিকেশান সিগনাল একত্রে প্রেরণ করা হয়। এই দুই ধরনের সিগন্যাল থেকে কমিউনিকেশান সিগন্যাল পৃথক করার জন্য যে ডিভাইসটি ব্যবহার করা হয় তার নাম ওয়েব ট্র‍্যাপ।

অপটিক্যাল গ্রাউন্ড ওয়্যার
ওয়েব ট্র্যাপ

অপটিক্যাল গ্রাউন্ড ওয়্যার ইন্সটলেশান

OPGW ট্রান্সমিশন লাইনে স্থাপনের সময় ওয়েদার প্রুফ স্প্লাইস বক্স ব্যবহার করা হয়। যা লাইনটিকে এক টার্মিনাল হতে অন্য টার্মিনালে সংযুক্ত হতে সাহায্য করে। এর অন্য নাম জাংশন বক্স।

ব্যান্ডউইথ শেয়ারিং বিজনেস

বর্তমানে সাবস্টেশানে যোগাযোগ রক্ষার অনন্য প্রযুক্তি SCADA (supervisory control and data acquisition system). আর এই প্রযুক্তির অন্যতম হাতিয়ার হল OPGW, যার মাধ্যমে আলোর দ্রুতিতে ভয়েস অথবা ডাটা সিগনাল প্রেরিত হয়। বাংলাদেশ পাওয়ার গ্রীড কোম্পানি নিজস্ব ব্যবহারের পরেও থার্ড পাটি বা টেলিকম কোম্পানিকে ব্যান্ডউইথ বিক্রি করে। রবি, গ্রামীণফোন পিজিসিবির OPGW লাইন এর মাধ্যমে তার গ্রাহকদের ইন্টারনেট সার্ভিস প্রদান করে৷

পাবলিক টেলিফোন নেটওয়ার্ক এর পরিবর্তে এটি কেন ব্যবহার করা হয়?

এটা বুঝতে হলে আগে ব্যান্ডউইথ এর ব্যাপারটা ক্লিয়ার করা লাগবে। ব্যান্ডউইথ হল একটা রেডিও / ফাইবার চ্যানেলে প্রতি সময়ে কি পরিমাণ বাইনারি ডাটা চলাচল করতে পারে। এক কথায় একে ডাটা স্পিড বলা যায়। উদাহরণ হিসেবে বলা যায়, একটা রাস্তায় কি পরিমাণ গাড়ি আসা যাওয়া করবে তার হিসাব। এখন রাস্তার মধ্যে যদি গাড়ি বেশি হয়ে যায় তখন জ্যাম বাজবে। তেমনিভাবে পাবলিক টেলিফোন নেটওয়ার্ক ব্যবহার করলে তাদের ব্যান্ডউইথ কম হবে। তাই জরুরি মুহূর্তে কল কেটে যেতে পারে। ট্রান্সমিশনে অনেক সময় লাগতে পারে।

ট্রান্সমিশন লাইন নিয়ে আরো টপিক

132kV, 230kV, 400kV ট্রান্সমিশন লাইন পানিতে ছিড়ে পড়লে কি হবে?

ট্রান্সমিশন লাইনে কমলা এবং নীল রঙ এর মার্কার বল থাকে কেন পড়ুন

কিভাবে বুঝবো যে কোনটা ১৩২ বা কোনটা ২৩০ কিলোভোল্ট এর গ্রীড লাইন?

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here