জেনারেটর সাইজ নির্ধারণ প্রক্রিয়া | kVA calculation

0
309

জেনারেটর চিনেনা এমন লোক খুঁজে পাওয়া দুষ্কর। অনেকের মনে একটা প্রশ্ন কাজ করে বিভিন্ন পাওয়ার জেনারেশন কোম্পানি কিভাবে জেনারেটর সাইজ সিলেকশন করে থাকে? আজ মূলত এই জেনারেটর সাইজ নির্ধারণ প্রক্রিয়া নিয়ে আলোচনা হবে ইনশাল্লাহ। চলুন শুরু করা যাক।

জেনারেটর সাইজিং খুব গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। স্পেশালি বৈদ্যুতিক মোটরের ক্ষেত্রে এই হিসেব খুব সতর্কভাবে করতে হবে। কারণ মোটর শুরুতে খুব বেশি পরিমাণ কারেন্ট নেয় যা তার মূল রেটিং এর দুই থেকে তিন গুণ। জেনারেটরের মাধ্যমে উচ্চমানের সার্জ কারেন্ট অল্প সময়ের জন্য সাপ্লাই দেয়া সম্ভব।

তবে দীর্ঘ সময়ের জন্য উচ্চ লোড কারেন্টের চাহিদা কিংবা ভারী মোটর একটি জেনারেটরকে ওভারলোড করতে পারে। এমনকি সম্ভবত জেনারেটর এবং মোটর উভয়কেই ক্ষতি করে। ব্যবহৃত লোডগুলোর কথা ভেবে খুব ঠান্ডা মাথায় ক্যালকুলেশন করতে হবে।

এই কারণে, আপনার জেনারেটরটি যে পাওয়ার সরবরাহ করবে তা নির্ধারণ করার সময় বিদ্যমান লোড/ওয়াটগুলোকে তিনগুণ ধরে হিসেব করাই শ্রেয়। আর kVA সাইজিং এর সময়, kW= kVA x Power Factor এই সূত্র ধরে এগোতে হবে। এবার চলুন জেনে আসা যাক কিভাবে সাইজ নির্ধারণ করব।

কিভাবে জেনারেটর সাইজ নির্ধারণ করব?

প্রথমে আপনার ব্যবহৃত লোডগুলোর তালিকা তৈরি করুন। যদি বৈদ্যুতিক মোটর বা বৈদ্যুতিক মোটর চালিত কোন লোড হয়ে থাকে যেমন ব্লেন্ডার, ওয়াশিং মেশিন, হিট ব্লোয়ার তাহলে রেটেড কিলোওয়াটের তিনগুণ ধরে হিসেব করুন।

সাধারণত সমস্ত লোডের গায়ে বা ম্যানুয়ালে কিলোওয়াটে এ রেটিং করা থাকে। তবুও কোন লোডে যদি ভোল্ট-এম্পিয়ারে রেটিং করা থাকে তাহলে তাকে পাওয়ার ফ্যাক্টর দিয়ে গুণ করে ওয়াটের মান বের করে নিতে হবে। সাধারণত বাসাবাড়ির জন্য আদর্শ পাওয়ার ফ্যাক্টর 0.8। নিচে লোডের একটি স্যাম্পল দেয়া হলঃ

ইলেকট্রিক হিটার ১০০০ ওয়াট
আটটি ১০০ ওয়াটের বৈদ্যুতিক বাতি ৮০০ ওয়াট
মোট লোড = ১৮০০ ওয়াট

আর মোটর বা মোটরচালিত লোডের জন্য আমরা তিনগুণ হিসেব করব।

রানিং লোড = ১৮০০ ওয়াট
স্টার্টিং লোড = ৬০০ x ৩ = ১৮০০ ওয়াট (সর্বোচ্চ)

তবে আপনাকে ভবিষ্যতের কথাও মাথায় রেখে জেনারেটর সাইজিং করতে হবে। কারণ ভবিষ্যতে লোড এক্সটেন্ড করতে হতে পারে। যেমনঃ

ধাপ-১ রানিং লোড
১৮০০ ওয়াট
 স্টার্টিং লোড
১৮০০ ওয়াট
ধাপ-২ +৬০০ +১৮০০
ধাপ-৩ ২৪০০ ওয়াট ৩৬০০ ওয়াট
+২৫% +৬০০ +৯০০
ধাপ-৪ ৩০০০ ওয়াট ৪৫০০ ওয়াট

এখন, সম্ভাব্য বর্ধিত লোড সহকারে হিসেব করার পর প্রাপ্ত ওয়াটকে পাওয়ার ফ্যাক্টর দিয়ে গুণ করলেই জেনারেটর কে ভি এ সাইজ নির্ধারণ করা সম্ভব।

kW= kVA x Power Factor

বা, kVA = kW/Power Factor

বা, kVA = ৪৫০০/০.৮ = ৫৬২৫ kVA = ৬০০০ kVA = ৬ kVA

উল্লেখ্য যে, দরকারি সাইজের থেকেও প্রয়োজনে অধিক সাইজ ব্যবহার করা যেতে পারে কিন্ত কখনোই তার তুলনায় কম হওয়া উচিত নয়। এতে ওভারলোড জনিত সমস্যা সৃষ্টি হতে পারে।

আরো কিছু আর্টিকেল

একটি জেনারেটর কখন মোটর হিসেবে কাজ করবে? | জেনারেটরের রহস্য

মোটর/জেনারেটরের এক্সাইটেশন সিস্টেম এবং অমনোযোগী ছাত্র

ডিসি মেশিনের ব্যাসিক ধারণাঃ পর্ব-১ | মোটর-জেনারেটর

ডিসি মেশিনের ব্যাসিক ধারণাঃ পর্ব-২ | মোটর-জেনারেটর

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here