ভার্চুয়াল ভাইবা বোর্ড এবং চারটি গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন

প্রশ্ন লিখে সরাসরি উত্তর দেয়া তো অনেক হল। ব্যাপারটা একঘেয়ে হয়ে গেছে। আজকের উপস্থাপনাটা একটু ভিন্ন প্রকৃতির হবে। আপনাদের ভার্চুয়াল ভাইবা বোর্ডের অনুভূতি দিতে হাজির হয়েছি।

মনে করুন, আপনি কোন কোম্পানির লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছেন। এবার ভাইবায় নিজেকে উপস্থাপন করার পালা। ভাইবার দিন সকালে আপনি বেশ উত্তেজিত এবং চিন্তিত হয়ে আছেন। কারণ, এটিই আপনার চাকরির প্রথম ভাইবা হতে যাচ্ছে। টেনশনে সকালের নাশতাটাও ভালভাবে করা হয়নি। ঠিক সময়ের আগেই পৌঁছে গেলেন কোম্পানির প্রধান কার্যালয়ে। গিয়ে দেখলেন আপনার মতই অনেক চাকরিপ্রার্থী ভাইবার জন্য অপেক্ষা করছে। সবাইকে বেশ চিন্তিত লাগছে। শুরু হল ভাইবা। একের পর এক ভেতরে যাচ্ছে। কেউ হাসিমুখে বের হচ্ছে আর কেউ বিমর্ষ মুখে। যারা ভাইবা দিয়ে বের হল তাদের আবার বাইরে এসেও ইন্টারভিউ শুরু। কি প্রশ্ন করছে তা জানতে বাকিরা খুবই কৌতূহলী হয়ে আছে। অনেক অপেক্ষার পর আসল আপনার পালা। আপনি অনুমতি নিয়ে ভেতরে ঢুকলেন এবং অনুমতি নিয়েই চেয়ারে বসলেন। ভাইবা বোর্ডে ছিলেন চারজন। উনারা ঐ কোম্পানির সিনিয়র অফিসারবৃন্দ। নিজের পরিচয় পর্ব শেষ হল। অতঃপর চারজন অফিসার আপনাকে চারটি প্রশ্ন করলেন।

প্রথম প্রশ্ন: মোটরকে প্রথমে ডেল্টা তারপর স্টারে চালালে কোন সমস্যা হবে?

প্রথমে ডেল্টায় চালালে মোটরের কয়েল পুর্ণ লাইন ভোল্টেজ পাবে ও এমতাবস্থায় রোটর শুরুতে স্থির থাকায় স্টার্টিং কারেন্ট অনেক বেশি হবে। ফলে মোটরটি পুড়ে যেতে পারে। একটি ডিভাইস ডেল্টা কানেকশনে যে পরিমাণ কারেন্ট নেয় তার তুলনায় অনেক কম পরিমাণ কারেন্ট নেয় স্টার কানেকশনে। এই জন্যই ইন্ড্রাস্ট্রিতে মোটরকে স্টার ডেল্টা কানেকশন দিয়ে চালু করা হয়। তারপর অফিসার আপনাকে একটা কাগজ দিয়ে বলল এখানে আপনার কথাটির গাণিতিক প্রমাণ দিন।

গাণিতিক প্রমাণ

ধরি, আমার কাছে 15 KW এর একটা মোটর আছে। আমি এতে 400 volt supply দিব। এখন এই শর্তে আমি আপনাদের স্টার কানেকশন এবং ডেল্টা কানেকশনে কি পরিমাণ কারেন্ট নিবে সেটা হিসেব করে দেখাব।

ধরলাম শুরুতে স্টার কানেকশন দেয়া হল। আমরা জানি, স্টার কানেকশনের ক্ষেত্রে, লাইন ভোল্টেজ ফেইজ ভোল্টেজ এর 1.732 গুণ

তাহলে, লাইন ভোল্টেজ VL = 1.732 x 220 = 400 volt (approx)। এবার তাহলে, লোড কারেন্ট IL = 15000/(1.732 x 400 x 0.8) = 27 Amps

এবার যদি এটাতে ডেল্টায় কানেকশন দেয়া হয় তাহলে, লাইন ভোল্টেজ ফেইজ ভোল্টেজ এর সমান হবে। অর্থাৎ, VL = Vp = 400 volt। এক্ষেত্রে লোড কারেন্ট IL = 15000/(400 x 0.8) = 46 Amps. অর্থাৎ, দেখা যাচ্ছে ডেল্টা কানেকশনে মোটরটি স্টার কানেকশনের তুলনায় 1.7 গুণ বেশি কারেন্ট নিচ্ছে। অতঃপর অফিসার আপনার উত্তরে খুব খুশি হলেন।

ভাইবার প্রশ্ন
মোটর
মোটর

দ্বিতীয় প্রশ্নঃ পাওয়ার ফ্যাক্টর improvement এর জন্য inductor bank কেন ব্যবহার করা হয়না?

ইন্ড্রাস্ট্রিতে ব্যবহৃত লোডসমূহ অধিকাংশই ইন্ডাক্টিভ। অল্পকিছু রেজিস্টিভ ও ক্যাপাসিটিভ। ফলে পাওয়ার ফ্যাক্টর সর্বোপরি ল্যাগিং হয়। ইন্ডাক্টর ব্যাংক ব্যবহার করলে তা আরো ল্যাগিং হবে। তাই ইন্ডাক্টর ব্যাংক ব্যবহার করা হয় না।

অফিসার আবার প্রশ্ন করলেন ল্যাগিং হলে অসুবিধা কি?

পাওয়ার ফ্যাক্টর হল ভোল্টেজ এবং কারেন্টের মধ্যবর্তী কোণের কোসাইন মান। এখন, এই মধ্যবর্তী কোণের মান যত কমিয়ে আনা যাবে ততই পাওয়ার ফ্যাক্টরের মান এক বা তার কাছাকাছি যাবে। কিন্ত ইন্ডাক্টর ব্যাংক ব্যবহার করলে ভোল্টেজ এবং কারেন্টের মধ্যবর্তী কোণের মান বেড়ে গিয়ে পাওয়ার ফ্যাক্টর কমে যায়। প্রশ্নকর্তা খুশি হলেন এবং আবার প্রশ্ন করলেন,

পাওয়ার ফ্যাক্টর কম হলে কি কি অসুবিধা হয়?

  • লাইন লস বেড়ে যাবে।
  • বড় সাইজের তার লাগবে।
  • পাওয়ার কোম্পানিকে জরিমানা দিতে হবে।
  • অধিক kVA রেটিং এর যন্ত্রের প্রয়োজন হবে।
অফিসার আবার প্রশ্ন করলেন ব্যাপারগুলোকে গাণিতিকভাবে কিভাবে ব্যাখ্যা করবেন?

এসি সিস্টেমে তড়িৎক্ষমতা (P), বিভব (V) এবং তড়িৎ প্রবাহ (I) এর সাথে নিম্নোক্তভাবে সম্পর্কিত

P=V×I×cosθ…….(1)

এখানে θ হল Phasor Domain এ বিভব ও তড়িৎ প্রবাহ নির্দেশকারী ভেক্টরের মধ্যবর্তী কোণ। (ডিসি সিস্টেমে θ=0 তাই P=V×IP=V×I)। এর কোসাইনই হলো সিস্টেমের পাওয়ার ফ্যাক্টর। V×I রাশিটিকে Apparent power বা kVA রেটিং বলা হয় যাকে S দ্বারা প্রকাশ করা হয়। সাধারণত যন্ত্রের ক্ষমতার পরিমাপ করা হয় এই kVA রেটিং দ্বারা।

সারাংশ হল, V×I=S এবং cosθ=P.F

এবার কোনো একটি সিস্টেমের পাওয়ার ফ্যাক্টর যদি কম হয়, তবে ঠিক একই পরিমান ক্ষমতা (P) পেতে হলে আপনাকে বেশী kVA রেটিং এর যন্ত্রের প্রয়োজন হবে। কারণ, (১) নং সমীকরণ বলে যে,

S=P/P.F

যে যন্ত্রের kVA রেটিং বেশী, সেটি বেশি ব্যয়বহুল। অর্থাৎ খরচ বেড়ে যাবে।

আর যদি আপনি একই যন্ত্র ব্যবহার করে থাকেন (অর্থাৎ S এবার fixed) তাহলে নিম্ন পাওয়ার ফ্যাক্টরের কারণে আপনার Active power বা কার্যকর ক্ষমতা (P) কমে যাবে। কারণ,

P=S×P.F

আপনার বাসায় পাওয়ার ফ্যাক্টর এর মান বেশি কমে গেলে বিদ্যুৎ সরবরাহ প্রতিষ্ঠান জরিমানা করতে পারে। কারণ নিম্ন মানের পাওয়ার ফ্যাক্টরের ক্ষমতা সরবরাহ করলে সরবরাহ লাইনের তড়িৎ প্রবাহ বেড়ে যায়। কিভাবে?

১নং সমীকরণে ফিরে আসি। সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান আপনার বাসায় সর্বদা একটি নির্দিষ্ট বিভবে বিদ্যুৎ দিয়ে থাকে। আমাদের উপমহাদেশের জন্য এর মান ২৩০ ভোল্ট। আমাদের ব্যবহার্য যন্ত্রপাতিগুলো এই বিভবের জন্য উপযোগী করেই তেরি করা। তাই V সর্বদা স্থির রাখতে হবে। আপনি যদি একটি নির্দিষ্ট পরিমাণ ক্ষমতা (P) নিয়ে থাকেন, তবে পাওয়ার ফ্যাক্টর কম হলে তড়িৎপ্রবাহের মান বেড়ে যাবে।

I=PV×P.F

আর তড়িৎ প্রবাহ বেশী হলে সিস্টেম লস অর্থাৎ সরবরাহ লাইনে বিদ্যুতের অপচয় হবে (Ploss=I2×R) । অধিক বিদ্যুৎ পরিবহণের জন্য তারের পুরুত্ব বাড়াতে হবে। এতে খরচ বেড়ে যায়। একারণে বিদ্যুৎ বিতরণ সংস্থা আপনাকে চার্জ করতে পারে।

তাই পাওয়ার ফ্যাক্টর এর মান বেশী রাখার চেষ্টা করা হয়।

ভাইবার প্রশ্ন
পাওয়ার ফ্যাক্টর
পাওয়ার ফ্যাক্টর

তৃতীয় প্রশ্নঃ আর্মেচার লোহার তৈরি আর কম্যুটেটর তামার তৈরি। কোন বিশেষ কারণ?

লোহা ভালো চৌম্বক ভেদ্যতাসম্পন্ন হওয়ায় তা আর্মেচারে ব্যবহার করা হয়। তামা উচ্চ পরিবাহিতাসম্পন্ন হওয়ায় কম্যুটেটরে তা ব্যবহার করা হয়।

৪র্থ প্রশ্ন : আপনার চাকরির ইচ্ছার মূল উদ্দেশ্য কি?

ইলেকট্রিসিটি রিলেটেড কাজ আমার passion. তাছাড়া পার্থিব জীবনে টাকা আবশ্যক। আর সেই সাথে কোম্পানি এবং মানবকল্যাণে নিজকে নিয়োজিত করাই আমার ব্রত।

চারজন অফিসার আপনার উপর সন্তুষ্ট হলেন এবং আপনি আনন্দচিত্তে ভাইবা বোর্ড থেকে বের হয়ে আসলেন।

ভাইবা সংক্রান্ত আরো কিছু পোস্ট

মৌখিক পরীক্ষার প্রস্তুতি, ভাইবাতে সম্ভাব্য কিছু সাধারণ প্রশ্ন যা আপনার জেনে রাখা উচিত

ভাইবা-তে কমন প্রশ্নঃ ট্রান্সফরমার রেটিং KW এ না হয়ে KVA তে কেন হয়?

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here