Home Short Question সংক্ষিপ্ত প্রশ্নোত্তর পর্ব-১ । ইলেকট্রিক্যাল সার্কিট

সংক্ষিপ্ত প্রশ্নোত্তর পর্ব-১ । ইলেকট্রিক্যাল সার্কিট

0
418

EEE Job Preparation

সংক্ষিপ্ত প্রশ্নোত্তর পর্ব-১

টপিকঃ ইলেকট্রিক্যাল সার্কিট

প্রশ্ন-১ঃ ইলেকট্রিক্যাল সার্কিট কাকে বলে?

উত্তরঃ যে পথ দিয়ে বা যে মাধ্যমে সহজেই বিদ্যুৎ চলাচল করে লােডের মধ্যে দিয়ে তার কার্য সম্পাদনা করে অন্য একটি পথে ফিরে আসতে পারে তাকে ইলেকট্রিক্যাল সার্কিট বা বর্তনী বলে।

এক কথায়ঃ বিদ্যুৎ চলাচলের সম্পূর্ণ পথকে ইলেকট্রিক্যাল সার্কিট বলে।

[বিস্তারিত]

প্রশ্ন-২ঃ কারেন্ট (current) কি?

উত্তরঃ কোন পরিবাহীর মধ্য দিয়ে মুক্ত ইলেকট্রনসমূহের নির্দিষ্ট দিকে প্রবাহিত হওয়ার হারকে কারেন্ট বলে।

এক কথায়ঃ ইলেকট্রনের প্রবাহই হচ্ছে কারেন্ট।

প্রশ্ন-৩ঃ কারেন্টের একক কি?

উত্তরঃ কারেন্টের একক হচ্ছে অ্যাম্পিয়ার (A) অথবা Amp অথবা কুলম্ব/সেকেন্ড।

প্রশ্ন-৪ঃ কারেন্টকে কি দ্বারা প্রকাশ করা হয়?

উত্তরঃ কারেন্টকে i বা I দ্বারা প্রকাশ করা হয়।

[বিস্তারিত]

প্রশ্ন-৫ঃ ভােল্টেজ কাকে বলা হয়?

উত্তরঃ কোন পরিবাহী পদার্থের পরমানুর মুক্ত ইলেকট্রনসমূহকে স্থানচ্যুত করতে বা এক স্থান থেকে অন্য স্থানে পাঠাতে যে বল বা চাপের প্রয়ােজন হয় তাকে ভােল্টেজ বলা হয়।

এক কথায়ঃ ইলেকট্রনকে স্থানচ্যুত করার চাপকে ভোল্টেজ বলে।

প্রশ্ন-৬ঃ ভোল্টেজের একক কি?

উত্তরঃ ভােল্টেজের একক হচ্ছে ভােল্ট (Volt) এবং একে V দ্বারা প্রকাশ করা হয়।

প্রশ্ন-৭ঃ রেজিস্ট্যান্স (Resistance) বা রোধ কাকে বলে?

উত্তরঃ কোন পরিবাহী পদার্থের মধ্য দিয়ে বিদ্যুৎ চলাচলের সময় বিদ্যুৎ চলাচলে যে বাধাঁ সৃষ্টি করে তাকে Resistance বা রোধ বলা হয়।
অথবা
পরিবাহী পদার্থের যে ধর্মের কারণে তার ভিতর দিয়ে ইলেকট্রন ও আয়ন চলাচলে বাধাঁ পায় তাকে ঐ পরিবাহির Resistance বা রোধ বলে।

এক কথায়ঃ বিদ্যুৎ চলাচলে যে বাধাঁ প্রদান করে তাকেই Resistance বলে ।

প্রশ্ন-৮ঃ রেজিস্ট্যান্সের একক কি?

উত্তরঃ রেজিস্ট্যান্সের একক হচ্ছে ওহম (Ω) এবং একে r অথবা R দ্বারা প্রকাশ করা হয়।

[বিস্তারিত]

প্রশ্ন-৯ঃ ওহমের সূত্রটি বিবৃত করেন।

উত্তরঃ ওহমের সূত্রের বিবৃতি: “নির্দিষ্ট তাপমাত্রায় কোন একটি পরিবাহীর মধ্য দিয়ে যে কারেন্ট প্রবাহিত হয় তা পরিবাহীর দুই প্রান্তের বিভব পার্থক্যের সমানুপাতিক এবং রেজিস্ট্যান্সের ব্যাস্তানুপাতিক।“

অর্থাৎ,
পরিবাহির দুই প্রান্তের বিভব পার্থক্য যদি V ভোল্ট হয় এবং রেজিস্ট্যান্স যদি R ওহম হয়, তাহলে ওহমের সূত্রানুসারে, কারেন্ট, I = V / R

এখানে,
I = কারেন্ট (অ্যাম্পিয়ার),
V = ভোল্টেজ বা বিভব (ভোল্ট),
R = রেজিস্ট্যান্স বা রোধ (ওহম)।

[বিস্তারিত]

প্রশ্ন-১০ঃ ওহমের সূত্রের সীমাবদ্ধতাগুলো কি?

উত্তরঃ ওহমের সূত্রের সীমাবদ্ধতাঃ
ক) ওহমের সূত্র শুধুমাত্র ডিসি সার্কিটে প্রয়োগ করা যায়, এসি সার্কিটের জন্য প্রযোজ্য নয়।
খ) ওহমের সূত্র দ্বারা জটিল সার্কিটগুলো সমাধান করা যায় না।
গ) ওহমের সূত্র প্রয়োগ করতে হলে তাপমাত্রা স্থির থাকতে হবে অর্থাৎ তাপমাত্রা পরিবর্তন হলে ওহমের সূত্র প্রযােজ্য হয় না।

ইলেকট্রিক্যাল সার্কিট ভাইভা প্রস্তুতি-২

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

error: Content is protected !!