Home ইলেকট্রিক্যাল (Pro) পাওয়ার সিস্টেম (Pro) স্টিল টাওয়ার – লাইন সাপোর্ট | Steel Towers line Support

স্টিল টাওয়ার – লাইন সাপোর্ট | Steel Towers line Support

0
447

স্টিল টাওয়ার লাইন সাপোর্ট – ইতোমধ্যে আমরা কয়েক প্রকার লাইন সাপোর্ট সম্বন্ধে জেনেছি। এই লেখাতে আমরা অন্যতম একটি লাইন সাপোর্ট স্টিলের টাওয়ার সম্বন্ধে বিস্তারিত জানার চেষ্টা করব। তাহলে চলুন শুরু করা যাক-

স্টিলের টাওয়ার (Steel Towers):

সাধারণত কাঠের পোল, স্টিলের পোল ও আর.সি.সি পোল লো ভোল্টেজ থেকে সর্বোচ্চ ১১ কে.ভি. পর্যন্ত ডিস্ট্রিবিউশন লাইনে ব্যবহার করা যায়। তবে উচ্চতর দূরত্বে (High distance) হাই ডিস্ট্রিবিউশন ভোল্টেজ লাইনে এসব লাইন সাপোর্ট ব্যবহার করা যায় না, সেখানে স্টিলের টাওয়ারগুলো ব্যবহার করা হয়। এসব টাওয়ার ১১ কে.ভি. থেকে বৃহৎ যে কোন লাইন এবং অনেক দীর্ঘ স্প্যানেও ব্যবহার করা যায়।

নরম স্টিল বা গ্যালভানাইজ করা স্টিলের অ্যাঙ্গেল চ্যানেলগুলো রিভেট, নাট বল্টু দিয়ে আটকে লম্ব বিন্যাসে টাওয়ারের কাঠামাে তৈরি করা হয় এবং অনুভূমিক ও কোনাকুনিভাবে অন্যান্য স্টিলের চ্যানেল দ্বারা টাওয়ারের বাকি অংশ তৈরি করা হয়। এসব টাওয়ার যথেষ্ট ভারি ও শক্ত হয়ে থাকে।

স্টিল টাওয়ার তৈরি করা হচ্ছে

এবার স্টিলের টাওয়ার সম্বন্ধে আরো কিছু তথ্য তুলে ধরা হলোঃ

  • লাইন সাপোর্ট হিসেবে স্টিলের টাওয়ার অন্যান্য লাইন সাপোর্টগুলোর চেয়ে সবচেয়ে বেশি যান্ত্রিক শক্তি ও দীর্ঘস্থায়ী সম্পন্ন হয়।
  • এছাড়া এগুলাে বিপজ্জনক আবহাওয়াতেও সঠিক অবস্থানে থাকার যথেষ্ট ক্ষমতা রাখে।
  • এসব টাওয়ার এমন দৃঢ়ভাবে তৈরি করা হয় যাতে টাওয়ারের একটি বা দুটি তার ছিড়ে গেলেও টাওয়ার তার অসম টান সহ্য করতে পারে।
  • এই টাওয়ারের উচ্চতা ২০ থেকে ৪০ মিটার বা তারও বেশি হয়, বিশেষ করে নদী পারাপার এবং পাহাড়ি এলাকায় এর উচ্চতা ১০০ থেকে ১৫০ মিটার এমনকি প্রয়োজন অনুসারে এর চেয়েও বেশি হতে পারে।
  • এসব পোলের স্প্যানের দৈর্ঘ্য ৩০০ / ৩৫০ / ৪০০ মিটার বা আরও অনেক বেশি (১০০০ মিটারের উর্ধ্বে) হয়ে থাকে।
  • টাওয়ারের দৃঢ়তা ব্যাসের প্রশস্ততার ওপর নির্ভর করে।
  • সাধারণত টাওয়ারের ব্যাসের প্রশস্ততা টাওরের উচ্চতার ½ ভাগ থেকে ⅕ ভাগ পর্যন্ত হয়ে থাকে।
নদী পারাপার এবং পাহাড়ি এলাকায় স্টিল টাওয়ার লাইন সাপোর্ট

টাওয়ারের বেস বর্গাকার অথবা আয়তাকার হয় এবং এই আকৃতি টাওয়ার সার্কিট, পারিপার্শ্বিক অবস্থা, টাওয়ার পজিশন ইত্যাদির উপর নির্ভর করে থাকে। তবে বর্গাকার টাওয়ারের ভিত্তি বেশি শক্তিশালী হয়ে থাকে।

এসব টাওয়ারের চারটি পায়া বা পা (leg) থাকে। কর্নার পােস্ট বা পাগুলাে এসব টাওয়ারের প্রধান অংশ হিসাবে বিবেচিত হয়। এগুলাে যথেষ্ট শক্ত ও ভারী হয়ে থাকে। টাওয়ারের ফুটিং (Footings) বা বেস পাদ গুলােকে ভালােভাবে আর্থিং করতে হয়।

বজ্রপাতের সময় বজ্রপাতজনিত সার্জ ভোল্টেজ টাওয়ারের উপরের মাথায় সংযুক্ত আর্থের তার দিয়ে টাওয়ার হয়ে মাটিতে আর্থ হয়ে যায় এবং লাইনকে ধ্বংসের হাত থেকে রক্ষা করে।

টাওয়ার ডিজাইন হিসাবে দুই ধরনের স্টিল টাওয়ার রয়েছেঃ

ক. সিঙ্গেল সার্কিট টাওয়ার এবং
খ. ডাবল সার্কিট টাওয়ার।

নিচের চিত্রে উভয় ধরনের টাওয়ার দেখানো হলো-

(i)সিঙ্গেল সার্কিট টাওয়ার (ii) ডাবল সার্কিট টাওয়ার।

লাইন সাপোর্ট সম্বন্ধে আরো জানতে নিচের লিংকসমূহে ভিজিট করুনঃ

লাইন সাপোর্ট কি, বৈশিষ্ট্য ও প্রকারভেদ।
কাঠের পোল সম্বন্ধে বিস্তারিত আলোচনা।
স্টিলের পোল সম্বন্ধে বিস্তারিত আলোচনা।
আরসিসি পোল সম্বন্ধে বিস্তারিত আলোচনা।
স্টিলের টাওয়ার সম্বন্ধে বিস্তারিত আলোচনা।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

error: Content is protected !!