ট্রান্সফরমার রেটিং এর তুলনায় কম-বেশি ভোল্টেজে চালনা করলে কি ঘটবে?

0
189

প্রত্যেক মানুষের মধ্যে যেমন জ্ঞান, সহ্যশক্তির একটি সীমা থাকে তেমনি মেশিনেরও একটি নির্দিষ্ট সহ্যক্ষমতা থাকে। ম্যানুফেকচারার কোম্পানি মেশিনের ভোল্টেজ এবং কারেন্ট রেটিং ফিক্স করে দেয়। ফিক্স করে দিলেও বিভিন্ন কারণে হয়তো মেশিনে ভোল্টেজ বা কারেন্ট কম বেশি হতেই পারে। তাই দরকারি প্রশ্ন হল, যদি কোন কারণে ট্রান্সফরমারে রেটিং এর তুলনায় ভোল্টেজ কম বেশি হয় তাহলে কি ঘটবে?

মনে করুন, যদি আপনার দৈনন্দিন জীবনে চলাফেরা এবং বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনা করার জন্য ২০০০ ক্যালরির দরকার হয় অথচ আপনাকে ৫০০ ক্যালরির খাবার দেওয়া হল। তাহলে এমতবস্থায় আপনার পাওয়ার কমে যাবে এবং শরীর দুর্বল হয়ে পড়বে। ট্রান্সফরমার কিংবা যেকোন মেশিনের বেলাতেও একই কাহিনী। তাদেরও পূর্ণ পাওয়ার পেতে নির্দিষ্ট মানের ভোল্টেজ এবং কারেন্ট দরকার।

তবে কিছু ক্ষেত্রে ট্রান্সফরমার নেমপ্লেটে রেটেড ভোল্টেজ অপেক্ষা কম ভোল্টেজে চালান যেতে পারে। যদি ট্যাপ চেঞ্জার না থাকে তাহলে ট্রান্সফরমার নেমপ্লেটে রেটেড ভোল্টেজ অপেক্ষা বেশি ভোল্টেজে চালান উচিত নয়। যদি রেটেড ভোল্টেজ অপেক্ষা কম ভোল্টেজে ট্রান্সফরমার চালান হয়, তাহলে এর এপারেন্ট পাওয়ার S (kVA) ক্রমান্বয়ে কমে যাবে। যেহেতু আমরা জানি,

S (kVA) = V x I

ধরুন, আপনার কাছে একটি ট্রান্সফরমার আছে। ট্রান্সফরমারের প্রাইমারি ভোল্টেজ 440 ভোল্ট ও সেকেন্ডারি ভোল্টেজ 220 ভোল্ট হয়ে থাকে এবং এটি যদি 220 ভোল্টে অপারেট করা হয় তাহলে সেকেন্ডারি ভোল্টেজ হ্রাস পেয়ে হবে 110 ভোল্ট। যদি ট্রান্সফরমারটির রেটিং 20 kVA হয়ে থাকে তাহলে সেটি হয়ে যাবে 10 kVA অথবা প্রদত্ত ভোল্টেজের সমানুপাতিক হতে পারে।

এখন প্রশ্ন হতে পারে, লোড সাইডে ভোল্টেজ কমে গেলে কি ঘটবে?

  • লোড সাইডে ভোল্টেজ কমে গেলে ব্রাউনআউট ঘটবে।
  • বিভিন্ন লোডের পারফর্মেন্স কমে যাবে।
  • যার দরুন কোম্পানির প্রোডাকশন ব্যহত হবে।
  • লোড সাইডে প্রচুর কারেন্ট বেড়ে যাবে এবং কপার লস, এডি কারেন্ট লস বেড়ে যাবে।
  • অনেক ক্ষেত্রে লোড কারেন্ট বেড়ে গিয়ে শর্ট সার্কিট ফল্ট হবার সম্ভবনা থাকে।

উপরের উদাহরণটিই আবার দেয়া যাক। ধরুন, ২০০০ ক্যালরি খাবার খেলে আপনার শরীর সুস্থ ও সতেজ থাকে। এখন যদি আপনাকে ৪০০০ ক্যালরি খাবার খেতে দেয়া হয় তাহলে আপনার শরীর নিশ্চয় অসস্তি বোধ করবে। জিমে গিয়ে ব্যায়াম করে এই অতিরিক্ত ক্যালরি নষ্ট করলে ভিন্ন কথা।

একইভাবে আপনার ওভারইটিং এর মত ট্রান্সফরমারে রেটেড ভোল্টেজের বেশি ভোল্টেজ দেয়া হলে ট্রান্সফরমার ক্ষতিগ্রস্থ হবে। তবে ট্যাপ চেইঞ্জার বা রেগুলেটর থাকলে ভিন্ন কথা। এক্ষেত্রে রেগুলেটর বা ট্যাপ চেইঞ্জার জিমের মত কাজ করবে।

এখন প্রশ্ন হতে পারে, সাপ্লাই সাইডে ভোল্টেজ বেড়ে গেলে কি ঘটবে?

  • যেহেতু ট্রান্সফরমারের কোর লস এবং হিস্টেরেসিস লস ভোল্টেজের উপর নির্ভর করে তাহলে কোর এবং হিস্টেরেসিস লস বেড়ে যাবে।
  • অরিরিক্ত তাপমাত্রা সৃষ্টির দরুণ ওভারহিটিং হতে পারে।
  • তাপমাত্রা বেড়ে গিয়ে ইন্ডাক্টিভ রিয়েক্ট্যান্স বেড়ে গিয়ে ভোল্টেজ ড্রপ/পটেনশিয়াল লস হতে পারে।

পরিশেষে বলা যায়, ট্রান্সফরমার কিংবা যেকোন মেশিনে তার রেটেড ভোল্টেজ দেয়াটা আবশ্যক। অন্যথায় যেকোন মুহুর্তে দূর্ঘটনা ঘটতে পারে।

আরো কিছু আর্টিকেল

কানেকশনবিহীন বা খোলা অবস্থায় ট্রান্সফরমারের HT এবং LT সাইড চেনার উপায়

ট্রান্সফরমারের বিভিন্ন প্যারামিটার ক্যালকুলেশন | Transformer Binding

নেইমপ্লেট দেখা ছাড়াই মোটরের কিলোওয়াট নির্ণয়

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here