পেল্টন, ফ্রান্সিস ও কাপলান টারবাইনের মধ্যে পার্থক্য

পেল্টন, ফ্রান্সিস ও কাপলান টারবাইনের পার্থক্য

পেল্টন, ফ্রান্সিস ও কাপলান টারবাইনের মধ্যে পার্থক্যঃ

পেল্টন টারবাইনফ্রান্সিস টারবাইনকাপলান টারবাইন
১. পেল্টন টারবাইন একটি ইম্পালস টারবাইন।১. ফ্রান্সিস টারবাইন একটি রিয়্যাকশন টারবাইন।১. কাপলান টারবাইন একটি রিয়্যাকশন ও প্রোপেলার টারবাইন।
২. ১৮৭০ সালে Lester Allan Pelton পেল্টন টারবাইন তৈরী করেন।২. ১৮৪৮ সালে James B Francis ফ্রান্সিস টারবাইন তৈরি করেন।২. ১৯১৩ সালে Professor Viktor Kaplan কাপলান টারবাইন তৈরী করেন।
৩. পেল্টন টারবাইন উচ্চ হেড ও লো ডিসচার্জকৃত পানির ক্ষেত্রে ব্যবহার করা হয়।৩. ফ্রান্সিস টারবাইন মধ্যম হেড ও মিডিয়াম ডিসচার্জকৃত পানির ক্ষেত্রে ব্যবহার করা হয়।৩. কাপলান টারবাইন নিম্ন হেড ও উচ্চ ডিসচার্জকৃত পানির ক্ষেত্রে ব্যবহার করা হয়।
৪. পেল্টন টারবাইন ২৫০ মি. থেকে ১০০০ মি. পর্যন্ত উচ্চ হেডে ব্যবহার করা হয়।৪. ফ্রান্সিস টারবাইন ৪০ মি. থেকে ৬০০ মি. পর্যন্ত মধ্যম হেডে ব্যবহার করা হয়।৪. কাপলান টারবাইন ১০ মি. থেকে ৭০ মি. পর্যন্ত নিম্ন হেডে ব্যবহার করা হয়।
৫. পেল্টন টারবাইনে রানারের ব্যাস ০.৮ মি. থেকে ০.৬ মি. এর মধ্যে পরিবর্তিত হয়।৫. ফ্রান্সিস টারবাইনে রানারের ব্যাস ০.৯১ মি. থেকে ১০.৬ মি. এর মধ্যে পরিবর্তিত হয়।৫. টারবাইনে রানারের ব্যাস ২ মি. থেকে ১১ মি. এর মধ্যে পরিবর্তিত হয়।
৬. পেল্টন টারবাইনে রানারের ঘূর্ণনের পথে পানি কৌণিকভাবে পতিত হয়।৬. ফ্রান্সিস টারবাইনে পানি অরীয়ভাবে প্রবেশ করে ও অক্ষীয়ভাবে ডিসচার্জ হয়।৬. কাপলান টারবাইনে পানি অক্ষীয়ভাবে প্রবাহিত হয়।
৭. পেল্টন টারবাইনে ব্লেড এর পরিবর্তে পর পর অনেকগুলো বাকেট লাগানো থাকে।৭. ফ্রান্সিস টারবাইনে সাধারণত ১৬ টি থেকে ২৪ টি ব্লেড থাকে।৭. সাধারণত ৩ টি থেকে ৬ টি ব্লেড থাকে।
৮. পেল্টন টারবাইনের ঘূর্ণন গতি ৬৫ থেকে ৮০০ rpm পর্যন্ত পরিবর্তিত হয়।৮. ফ্রান্সিস টারবাইনের ঘূর্ণন গতি ৭৫ থেকে ১০০০ rpm  পর্যন্ত পরিবর্তিত হয়।৮. কাপলান টারবাইনের ঘূর্ণন গতি ৬৯.২ থেকে ৪২৯ rpm পর্যন্ত পরিবর্তিত হয়।
৯. পেল্টন টারবাইনকে শুধু ওয়াটার টারবাইন হিসেবে ব্যবহার করা যায়।৯. ফ্রান্সিস টারবাইনকেও শুধু ওয়াটার টারবাইন হিসেবে ব্যবহার করা যায়।৯. কাপলান টারবাইনের রানারকে উল্টাদিকে ঘুরিয়ে পাম্প স্টোরেজ প্লান্ট হিসেবেও ব্যবহার করা যায়।
১০. পেল্টন টারবাইনের গঠন ও সাইজ অন্যান্য টারবাইনের চেয়ে বড় হয়।১০. ফ্রান্সিস টারবাইনের গঠন ও সাইজ পেল্টন টারবাইনের তুলনায় ছোট হয়।১০. কাপলান টারবাইনের গঠন ও সাইজ অন্যান্য টারবাইনের চেয়ে ছোট হয়।
১১. পেল্টন টারবাইন kinetic energy কে mechanical energy তে রুপান্তরিত করে।১১. ফ্রান্সিস টারবাইন potential energy কে mechanical energy তে রুপান্তরিত করে।১১. কাপলান টারবাইন kinetic energy ও potential energy কে mechanical energy তে রুপান্তরিত করে।
১২. পেল্টন টারবাইন ৪০০ মেগাওয়াট পর্যন্ত পাওয়ার উৎপাদনের ক্ষমতা রাখে।১২. ফ্রান্সিস টারবাইন ৮০০ মেগাওয়াট পর্যন্ত পাওয়ার উৎপাদনের ক্ষমতা রাখে।১২. কাপলান টারবাইন ৫ মেগাওয়াট থেকে ২০০ মেগাওয়াট পর্যন্ত পাওয়ার উৎপাদনের ক্ষমতা রাখে।
১৩. পেল্টন টারবাইনের আপেক্ষিক দ্রুতি ৮০ থেকে ২২৫ পর্যন্ত দেখা যায়।১৩. ফ্রান্সিস টারবাইনের আপেক্ষিক দ্রুতি ১৫ থেকে ৯০ পর্যন্ত দেখা যায়।১৩. কাপলান টারবাইনের আপেক্ষিক দ্রুতি ২.৫ থেকে ৮ পর্যন্ত দেখা যায়।
১৪. পেল্টন টারবাইনের দক্ষতা (efficiency) প্রায় ৮৫%।১৪. ফ্রান্সিস টারবাইনের দক্ষতা (efficiency) প্রায় ৯০%।১৪. কাপলান টারবাইনের দক্ষতা (efficiency) প্রায় ৯০% থেকে ৯৫% পর্যন্ত।

References:
Website: Wikipedia & The Constructor. text books

হাইড্রোইলেকট্রিক পাওয়ার প্ল্যান্ট সম্বন্ধে অন্যান্য লেখাসমূহঃ

কাপলান টারবাইন সম্বন্ধে আলোচনা।
ফ্রান্সিস টারবাইন সম্বন্ধে আলোচনা।
পেল্টন টারবাইন সম্বন্ধে আলোচনা।
হাইড্রোইলেকট্রিক পাওয়ার প্ল্যান্টের সকল কম্পোনেন্ট বা উপাদান।
পাওয়ার প্ল্যান্টঃ সংজ্ঞা, প্রকারভেদ ও কার্যপদ্ধতি
পানি বিদ্যুৎ কেন্দ্রের ইতিহাস ও সংক্ষিপ্ত আলোচনা
হাইড্রোইলেকট্রিক পাওয়ার প্ল্যান্টের সুবিধা-অসুবিধা
হাইড্রোইলেকট্রিক পাওয়ার প্ল্যান্ট প্রকারভেদ ও বিস্তারিত আলোচনা
হাইড্রোইলেকট্রিক পাওয়ার প্ল্যান্টের কার্যপদ্ধতি।

হাইড্রোইলেকট্রিক পাওয়ার প্ল্যান্টের সকল কম্পোনেন্ট বা উপাদান সম্বন্ধে জানতে ক্লিক করুন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here