স্টিম পাওয়ার প্ল্যান্টের সুবিধা ও অসুবিধা | Steam Power Plant

বাষ্প বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্রের সুবিধা ও অসুবিধাসমূহ

প্রতিটি জিনিসেরই সুবিধা-অসুবিধা রয়েছে। তদ্রুপ স্টিম পাওয়ার প্ল্যান্টেরও বেশ কিছু সুবিধা ও অসুবিধা রয়েছ। নিচে তা উল্লেখ করা হলো- 

সুবিধা সমূহঃ

  1. অন্যান্য পাওয়ার প্লান্টের তুলনায় এর প্রাথমিক ব্যয় কম।
  2. এর জ্বালানি খরচ কম।
  3. পানি বিদ্যুৎ প্রকল্পের তুলনায় এর জন্য কম জায়গা প্রয়োজন হয়।
  4. অন্যান্য পাওয়ার প্ল্যান্টের তুলনায় এই প্ল্যান্টে শব্দ দূষণ কম হয়।
  5. পেট্রোল বা ডিজেল পাওয়ার প্লান্টের তুলনায় এই প্ল্যান্টের বিদ্যুৎ উৎপাদন খরচ অনেক কম।
  6. অন্যান্য প্লান্টের তুলনায় এর তাপ উত্পাদন ব্যবস্থাও সহজ।
  7. বয়লার থেকে নিঃসৃত বাষ্প – Exhaust Steam এর সাহায্যে নিম্ন চাপের স্টিম টারবাইন ও স্টিম ইঞ্জিন চালিয়ে বাড়তি কাজ করা যায়।
  8. পানির প্রাচুর্য রয়েছে ও পরিবহন ব্যবস্থা ভালো এরুপ যে কোন স্থানে এটি স্থাপন করা যায়।
  9. পানি বিদ্যুৎ কেন্দ্রের সঙ্গে কাজ করলে যখন পানির প্রবাহ অনেক বেশি থাকে তখন একে সাহায্যকারী কেন্দ্র হিসেবে ব্যবহার করা যায়।
  10. বাড়তি বিদ্যুৎ চাহিদার প্রয়োজন গভর্নিং পদ্ধতিতে বিদ্যুৎ চাহিদার বাড়তি ১২% মিটানো যায়।

অসুবিধা সমূহঃ

  1. প্রচুর পরিমাণে কার্বন ডাই অক্সাইড উৎপন্ন করে যা বায়ুমণ্ডল দূষণের কারণ।
  2. এই পাওয়ার প্ল্যান্ট হতে নিঃসৃত গ্যাস বাইরের পরিবেশেকে মারাত্মকভাবে ক্ষতি করে।
  3. অন্যান্য পাওয়ার প্ল্যান্টের তুলনায় এর সামগ্রিক দক্ষতা (overall efficiency) কম।
  4. এই পাওয়ার প্ল্যান্ট শীঘ্রই চালু বা বন্ধ করা যায় না।
  5. এর খুচরা যন্ত্রাংশ বেশি থাকায় সহজে স্থানান্তর করা যায় না।
  6. এর প্রাথমিক ব্যয় কম হলেও রক্ষণাবেক্ষণ এবং অপারেটিং খরচ অনেক বেশী।
  7. এই প্ল্যান্টে ব্যবহার করা তাপীয় ইঞ্জিনগুলোর জন্য প্রচুর পরিমাণে তৈলাক্ত তেল প্রয়োজন যা খুব ব্যয়বহুল।
  8. এই পাওয়ার প্ল্যান্টে প্রচুর পরিমাণ পানি প্রয়োজন হয়।
  9. কয়লা চালিত স্টিম পাওয়ার প্ল্যান্ট গ্রিড হতে উৎপাদিত বিদ্যুৎ সরবরাহ করতে তুলনামূলকভাবে বেশি সময়ের প্রয়োজন হয়।
  10. পাওয়ার প্ল্যান্ট হতে পরিত্যক্ত গরম পানি নদী, পুকুর ইত্যাদিতে ফেলা হলে তা পানির জীবন্ত প্রাণীদের জন্য ক্ষতিকর ও বাস্তুসংস্থান (ecology) এর জন্য মারাত্মক হুমকি।

বাংলাদেশের কয়লা চালিত একমাত্র স্টিম পাওয়ার প্ল্যান্ট হচ্ছে বড়পুকুরিয়া তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্র। যা দিনাজপুর জেলার পার্বতীপুর উপজেলার হামিদপুর ইউনিয়নে অবস্থিত। এর মোট উৎপাদন ক্ষমতা ২৭৫ মেগাওয়াট । এখানে ১২৫ মেগাওয়াট উৎপাদন ক্ষমতা সম্পন্ন ৩ টি ইউনিট ব্যবহার করা হয়েছে। কেন্দ্রটিতে জ্বালানী হিসেবে বড়পুকুরিয়া কয়লাখনির কয়লা ব্যবহার করা হয়। এর পরিচলনা করছে বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড।

References:
Principles of Power system by V. K. Metha & Rohit Metha
Power PlantEngineering by Bismonath Majumdar   
Wikipedia
Electrical4u.com

অন্যান্য লেখাসমূহঃ

পাওয়ার প্ল্যান্টঃ সংজ্ঞা, প্রকারভেদ ও কার্যপদ্ধতি

স্টিম পাওয়ার প্ল্যান্টঃ সংজ্ঞা, প্রকারভেদ, উপাদান ও প্রাথমিক ধারণা

স্টিম পাওয়ার প্ল্যান্টের জন্য স্থান নির্বাচন

স্টিম পাওয়ার প্ল্যান্টের সরঞ্জাম সম্বন্ধে বিস্তারিত আলোচনা

স্টিম পাওয়ার প্ল্যান্ট কার্যপদ্ধতি সম্বন্ধে বিস্তারিত আলোচনা

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here